ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি গতকাল সোমবার এক প্রতিবেদনে জানায়, শিশুটির নাম লায়লা ডেভিস। বাড়ি যুক্তরাজ্যের স্যাফোকের গ্রেট ব্ল্যাকেনহামে। মা চার্লট ও বাবা কেভিন স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে বলেন, জন্মের পর থেকেই তাঁদের মেয়ে লায়লার চুল বেশ বড় ও ফোলানো। অনেকটা ঝাঁকড়া চুলের মতো। সব সময় এলোমেলো থাকে। কোনোভাবেই তার চুল বিন্যস্ত রাখা যায় না।

আসলে লায়লা চুলের একটি রোগে ভুগছে। চিকিৎসাবিজ্ঞানে জন্মগত এ রোগের নাম আনকমবেবল হেয়ার সিনড্রোম (ইউএইচএস)। গত মাসে শিশুটির এ রোগ শনাক্ত হয়। ১৯৭৩ সালে বিশ্বে প্রথম ইউএইচএস শনাক্ত হয়েছিল। এর পর থেকে বিশ্বজুড়ে মাত্র ১০০ জনের এ বিরল রোগ শনাক্ত হয়েছে বলে চিকিৎসক ও বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন। মূলত জিনগত পরিবর্তনের কারণে এটি হয়ে থাকে।

শিশুটির মা বলেন, ‘মাত্র এক বছর বয়সেই লায়লার চুল ফুলেফেঁপে উঠতে শুরু করে। আমরা ভেবেছিলাম, বয়স বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে এটা ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু হয়েছে উল্টোটা। ওর চুল আরও বড়, আরও এলোমেলো হয়েছে। পরবর্তী সময়ে চিকিৎসকের কাছে গিয়ে জানতে পারি, লায়লা চুলের বিরল রোগে ভুগছে। আর এমন চুলের কারণে তাকে দেখতে অনেকটা আইনস্টাইনের মতো লাগে।’

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন