default-image

আফ্রিকা থেকে বিপজ্জনক পথে ইউরোপে ঢুকতে গিয়ে প্রাণহানির ঘটনা বেড়েই চলেছে। গতকাল মঙ্গলবার তিউনিসিয়ায় দুটি নৌকা ডুবে কমপক্ষে ৩৯ জন অভিবাসনপ্রত্যাশীর মৃত্যু হয়েছে। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, ভূমধ্যসাগরের তিউনিসিয়া উপকূলে নৌকা দুটি ডুবে যাওয়ার পর ১৬৫ জন অভিবাসীকে জীবিত উদ্ধার করতে সক্ষম হন উদ্ধারকারীরা।

বিজ্ঞাপন

পরে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মোহাম্মদ জিকরি বলেন, রাত হয়ে যাওয়ায় এবং খারাপ আবহাওয়ার কারণে উদ্ধার কার্যক্রম সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, ৩৯ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ন্যাশনাল গার্ডের মুখপাত্র হুসেম এদ্দিন জেবালি বলেন, মৃতদের মধ্যে নয়জন নারী এবং চারটি শিশু।

কী কারণে নৌকা দুটি উল্টে যায়, তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। তবে অভিবাসী নিয়ে সেগুলো উত্তর আফ্রিকা থেকে ইউরোপের উদ্দেশে যাত্রা করেছিল এমনটা নিশ্চিত হওয়া গেছে।

কর্তৃপক্ষ জানায়, সাব–সাহারা অঞ্চলের আফ্রিকার বাসিন্দাদের নিয়ে রাতে নৌকা দুটি ইউরোপের উদ্দেশে রওনা দিয়েছিল। তবে তিউনিসিয়ার বন্দর এসফ্যাক্সের কাছে দেশটির কোস্টগার্ড নৌকা দুটিকে শনাক্ত করে।

এএফপির খবরে বলা হয়, গত বছর থেকে অস্থায়ী নৌকায় করে মধ্য-ভূমধ্যসাগর পাড়ি দেওয়ার ঘটনা বেড়ে গেছে। অভিবাসীপ্রত্যাশীদের জন্য সবচেয়ে বেশি প্রাণঝুঁকির রুট হয়ে উঠেছে এটি।

তিউনিসিয়ান ফোরাম ফর ইকোনমিক অ্যান্ড সোশ্যাল রাইটসের রমদানে বেন আমর বলেন, ‘বিদেশে পাড়ি দেওয়ার ঘটনা বেড়েই চলেছে।’

সংস্থাটির হিসাবে, ২০২১ সালের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত ৯৪টি নৌকা আটক করা হয়েছে। আগের বছরে একই সময়ে আটক করা হয়েছিল ৪৭টি।

অবৈধভাবে সমুদ্র পাড়ি দেওয়ার সময় এ বছর আটক করা হয়েছে ১ হাজার ৭৩৬ জনকে, যা ২০২০ সালে একই সময়ের তুলনায় প্রায় দ্বিগুণ।

বিজ্ঞাপন
আফ্রিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন