বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রাথমিকভাবে এটির বৈজ্ঞানিক নাম দেওয়া হয়েছে বি.১.১.৫২৯। তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া করোনার ধরনগুলোকে গ্রিক নাম (যেমন ডেলটা, গামা, বেটা প্রভৃতি) দিয়ে থাকে। আজ সংস্থাটির পক্ষ থেকে নতুন এই ধরনের গ্রিক নাম দেওয়া হতে পারে।

দক্ষিণ আফ্রিকার ভাইরাসবিদ তুলিও দে অলিভেইরা বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমরা করোনার নতুন একটি ধরন খুঁজে পেয়েছি। এটা দক্ষিণ আফ্রিকার জন্য ভীষণ উদ্বেগজনক একটি খবর। এর ফলে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা দ্রুত বাড়তে পারে।’

করোনার নতুন এই ধরনটির বিস্তারের ঘটনা গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে ডব্লিউএইচও। এই ধরন কী পরিমাণ বিপদ ডেকে আনতে পারে সেটা অনুমান করার জন্য শুক্রবার বৈঠকে বসছেন সংস্থাটির বিশেষজ্ঞরা।

করোনার নতুন এই ধরনের বিষয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার স্বাস্থ্যমন্ত্রী জোয়ে ফাহলা বলেন, এটা খুবই উদ্বেগের একটি বিষয়। এমনিতেই দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনা সংক্রমণ নতুন করে বাড়তে শুরু করেছে। এর মধ্যে ভাইরাসটির নতুন ধরন এলে তা বিপদ আরো বাড়াতে পারে।

আফ্রিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন