default-image

মিসরে হত্যার দায়ে আজ মঙ্গলবার ১১ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়েছে। তাঁদের ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করা হয়।  নিরাপত্তা বাহিনীর সূত্রের বরাত দিয়ে এএফপির খবরে এ তথ্য জানানো হয়।

একাধিক আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা এই ফাঁসির ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে।
নাম না প্রকাশ করার শর্তে নিরাপত্তা বাহিনীর একজন জানান, আলেকজান্দ্রিয়া শহরের কাছে বোর্গ আল–আরব কারাগারে ১১ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।
ওই নিরাপত্তা কর্মকর্তা জানান, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে আলেকজান্দ্রিয়া ও বেহেইরা অঞ্চলে কয়েকটি হত্যা মামলায় দণ্ডিত ছিলেন ওই ১১ জন।

সর্বশেষ গত শনিবার তিন নারীসহ পাঁচজনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। দুদিন যেতেই আজ ১১ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হলো।

গত ডিসেম্বরে লন্ডনভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল মিসরের প্রেসিডেন্ট আবদেল–ফাত্তাহ আল–সিসির শাসনকালে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছিল। সংস্থাটি তখন জানিয়েছিল, ২০২০ সালে অক্টোবর ও নভেম্বরে অন্তত ৫৭ জন নারী–পুরুষকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়।

সংস্থার মিডল ইস্ট ও নর্থ আফ্রিকাবিষয়ক গবেষণা পরিচালক ফিলিপ লুথার বলেন, ‘মিসর সম্প্রতিক মাসগুলোতে অনেক মানুষকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে ভয়াবহ মৃত্যুদণ্ড কার্যকরে মেতে উঠেছে।...এবং এর কোনো হিসাব নেই। মিসর কর্তৃপক্ষ কতজনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে বা কতজন মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত, সেই হিসাব দেয় না।’

অন্যদিকে নিউইয়র্কভিত্তিক হিউম্যান রাইটস ওয়াচও মিসরের এই গণহারে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের ব্যাপক সমালোচনা করেছে। দুটি সংগঠনই ‘তাৎক্ষণিক এই মৃত্যুদণ্ড কার্যকর রদ’ করতে আহ্বান জানায়।

বিজ্ঞাপন
আফ্রিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন