বিজ্ঞাপন

রামফোসা আরও বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সব ধরনের চেষ্টার পরও গত সপ্তাহে চলা সংঘাতে দেশটিতে শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। চলমান সংঘাতে সবচেয়ে বেশি ক্ষয়ক্ষতি হওয়া বন্দরনগর ডারবানের এথিকউইনি পৌর এলাকায় এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, সহিংসতায় বিনিয়োগকারীদের আত্মবিশ্বাসে ধস নেমেছে, যা আফ্রিকার অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে।

সংসদীয় কমিটিকে দেওয়া এক প্রতিবেদনে দেশটির পুলিশ জানিয়েছে, শপিং মল ও দোকানপাটে এখনো লুটপাট চলছে। বিদেশি মালিকানাধীন দোকানগুলো হামলায় বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানায় তারা।

দক্ষিণ আফ্রিকার গাউতেং ও কাওয়াজুলু প্রদেশ এখনো ঝুঁকিপূর্ণ। বিক্ষুব্ধ জনতা দেশটির পূর্ব কেপ, উত্তর কেপ এবং পশ্চিম কেপ প্রদেশে জড়ো হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এর মধ্যে কাওয়াজুলু-নাতালের প্রধান বিমানবন্দর কিং শাকা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরেও হামলা করা হয়েছে।

আফ্রিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন