বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নতুন দুটি ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের খবর এক বিবৃতিতে নিশ্চিত করেছে দক্ষিণ কোরিয়ার জয়েন্ট চিফ অব স্টাফস। সেখানে জানানো হয়, উৎক্ষেপণের পর ক্ষেপণাস্ত্র দুটি উত্তর কোরিয়ার পূর্ব সমুদ্র উপকূলে গিয়ে পড়ে। বিষয়টি দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো খতিয়ে দেখছে। তবে ক্ষেপণাস্ত্রগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দেওয়া হয়নি ওই বিবৃতিতে।

এমন সময় উত্তর কোরিয়া ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করল, যখন দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলে অবস্থান করছেন চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই। একে চীনের প্রতি উত্তর কোরিয়ার একটি সংকেত বলে মনে করছেন বিশ্লেষকেরা। দেশটির সঙ্গে চীনের নিবিড় বাণিজ্যিক ও সহায়তার সম্পর্ক রয়েছে। তবে এ মুহূর্তে সেই সম্পর্ক কিছুটা শীতল।
এদিকে ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের খবর সামনে আসার আগেই ওয়াং ই বলেন, কোরীয় উপদ্বীপে শান্তি ও স্থিতিশীলতা আনতে এ অঞ্চলের দেশগুলো সহায়তা করবে বলে আশা করা হচ্ছে। উত্তর কোরিয়া ছাড়া এই অঞ্চলের অন্য দেশগুলোও সামরিক কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আলোচনা চালিয়ে যেতে আমাদের সবার একসঙ্গে কাজ করতে হবে।’

ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা না করার বিষয়ে উত্তর কোরিয়ার ওপর জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। দেশটি গত মার্চেও এ ধরনের ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায়, যার পরিপ্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্র, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছিল।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন