বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আফগানিস্তানের বিভিন্ন বিষয়ে ইসলামাবাদের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ এনে পাকিস্তানবিরোধী বিক্ষোভ করেন তাঁরা।

বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দিতে একপর্যায়ে তালেবান সদস্যরা আকাশে ফাঁকা গুলি ছোড়েন।

তালেবানকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে। আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর এখন তালেবানকে সরকার গঠনে সহায়তা করছে পাকিস্তান। এ লক্ষ্যে দিন দুয়েক আগেই এক অঘোষিত সফরে কাবুলে যান পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টার-সার্ভিসেস ইন্টেলিজেন্সের (আইএসআই) মহাপরিচালক লেফটেন্যান্ট জেনারেল ফাইজ হামিদ। সেখানে তিনি বলেন, আফগানিস্তানে চলমান অস্থিতিশীল পরিস্থিতি একসময় ঠিক হয়ে যাবে।

এদিকে আফগানিস্তানে অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার গঠনে তালেবানকে পাকিস্তান সহায়তা করবে বলে জানিয়েছেন দেশটির সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া। গত শনিবার পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডমিনিক রাবকে এসব কথা বলেন তিনি।

গত ১৫ আগস্ট কাবুল দখলের মধ্য দিয়ে আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করে তালেবান। তালেবানের ক্ষমতা দখলে পাকিস্তানের রাষ্ট্রীয় পর্যায় থেকে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করতে দেখা যায়।

default-image

ক্ষমতা দখলের পর তিন সপ্তাহের বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও তালেবান এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিক কোনো সরকার গঠন করতে পারেনি। তবে এ কাজে পাকিস্তান প্রকাশ্যে-অপ্রকাশ্যে সহায়তা দিচ্ছে বলে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন