বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদন অনুযায়ী, বুধবার ভূমিকম্পের সময় কিছু এলাকায় ভূকম্পনের মাত্রা এতটা বেশি ছিল মানুষজন দাঁড়িয়ে পর্যন্ত থাকতে পারছিলেন না।

ভূকম্পনের কারণে আঘাত পেয়ে ফুকুশিমার সোমা শহরে ষাট বছর বয়সী একজন এবং মিয়াগি প্রিফেকচারে আরও একজন মারা যান বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

স্থানীয় সময় বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার পর শক্তিশালী ভূকম্পন অনুভূত হয় বলে জানিয়েছে জাপানের আবহাওয়া দপ্তর ও মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা।

ভূমিকম্পের পরপরই উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় উপকূলে এক মিটার পর্যন্ত উঁচু সুনামি আছড়ে পড়তে পারে বলে সতর্কতা জারি করা হলেও পরে তা প্রত্যাহার করা হয়েছে।

স্থানীয় বিদ্যুৎ সরবরাহকারী কর্তৃপক্ষ বলছে, ভূমিকম্পের পরপরই রাজধানী টোকিওতে সাত লাখ এবং উত্তর-পূর্বে দেড় লক্ষাধিক বাড়ি বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন