বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ নিয়ে রাশিয়ার বার্তা সংস্থা স্পুতনিকের সঙ্গে কথা বলেছেন গুতেরেস। তিনি বলেন, ‘ত্রাণসহায়তা নিয়ে তালেবানের সঙ্গে আমাদের আলোচনা হয়েছে। কোনো ধরনের বৈষম্য ছাড়া পুরো আফগানিস্তানজুড়ে মানবিক সহায়তা কার্যক্রম বাড়ানো, জাতিসংঘে কর্মরতদের সুরক্ষা, নারী অধিকার ইস্যুতেও তালেবানের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।’

বার্তা সংস্থা এএনআইয়ের খবরে বলা হয়েছে, গুতেরেস বলেন, তালেবানের সঙ্গে এসব ইস্যুতে গঠনমূলক ও ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে। এসব ইস্যুতে তালেবান বিভিন্ন ধরনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

তালেবানের সঙ্গে জাতিসংঘের এই আলোচনা শুরু হয়েছে চলতি মাসের শুরুর দিকে। এ জন্য জাতিসংঘের দূত মার্টিন গ্রিফিতস আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে গেছেন।

গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেয় তালেবান। এর আগে থেকেই বিভিন্ন দেশ তাদের নাগরিকদের সরিয়ে নিচ্ছিল। এ সময় বিভিন্ন আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানও তাদের কর্মীদের সরিয়ে নিয়েছে। তালেবান ক্ষমতায় আসার পর থেকে সেখানে বেশ কিছু পরিবর্তন এসেছে। সেখানে নারীরা আর কর্মক্ষেত্রে যেতে পারছেন না। বিভিন্ন রাজ্যে নোটিশ দিয়ে নারীদের কর্মস্থলে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। এ ছাড়া তালেবান ক্ষমতায় আসায় অনেকে দেশ ছেড়ে পালাতে বাধ্য হয়েছেন। এ সব নিয়ে উদ্বেগও প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক মহল।

এদিকে তালেবান ক্ষমতায় আসায় অনেক দেশ তাদের সাহায্য দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। ফলে আফগানিস্তানে মানবিক সংকট দেখা দিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সতর্কবার্তা উচ্চারণ করেছে জাতিসংঘ।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন