বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

তালেবানের এই সরকারে দ্বিতীয় উপপ্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করবেন আব্দুল সালাম হানাফি। অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে আমির খান মুক্তাকীর নাম ঘোষণা করা হয়েছে। প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাখা হয়েছে মোহাম্মদ ইয়াকুবকে। তালেবানের প্রতিষ্ঠাতা মোল্লা ওমরের ছেলে ইয়াকুব এত দিন এই গোষ্ঠীর সামরিক কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। অন্তর্বর্তীকালীন এই সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী করা হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সন্ত্রাসী তালিকায় থাকা হাক্কানি নেটওয়ার্কের প্রধান সিরাজউদ্দিন হাক্কানিকে।

নবগঠিত সরকারের আইনমন্ত্রী করা হয়েছে আব্দুল হাকিম শারিকে। সীমান্ত ও উপজাতিবিষয়ক মন্ত্রী করা হয়েছে মোল্লা নুরুল্লাহ নূরকে। এ ছাড়া তালেবান সরকারের গোয়েন্দা শাখার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে মোল্লা আব্দুল হক ওয়াসিককে।

বিপর্যস্ত দেশটির অর্থমন্ত্রী (ফিন্যান্স) হিসেবে মোল্লা হেদায়েতুল্লাহ বাদরির নাম ঘোষণা করা হয়েছে। অর্থনীতিবিষয়ক (ইকোনমি) মন্ত্রী করা হয়েছে কারি দীন মোহাম্মদ হানিফকে। যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর বানানো হয়েছে হাজি মোহাম্মদ ইদরিসকে।

জ্বালানি ও পানিমন্ত্রী করা হয়েছে মোল্লা আব্দুল লতিফ মনসুরকে। পল্লিমন্ত্রী করা হয়েছে মোল্লা ইউনুস আখুনজাদার নাম। মোল্লা আব্দুল মান্নান ওমারিকে গণপূর্তমন্ত্রী করা হয়েছে। খনি ও পেট্রোলিয়ামমন্ত্রী করা হয়েছে মোল্লা মোহাম্মদ ইশা আখুন্দকে, সংস্কৃতি ও তথ্যমন্ত্রী করা হয়েছে মোল্লা খাইরুল্লাহ খয়েরখাকে। তালেবান সরকারের মুখপাত্রের দায়িত্ব পালন করা জাবিউল্লাহ মুজাহিদকে সংস্কৃতি ও তথ্য মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী করা হয়েছে।

তালেবান সরকারের যোগাযোগমন্ত্রী হয়েছেন মৌলভী নাজিবুল্লাহ হাক্কানি, উচ্চশিক্ষা মন্ত্রী করা হয়েছে আব্দুল বাকি হাক্কানিকে এবং শরণার্থী ও প্রত্যাবাসনমন্ত্রী করা হয়েছে হাজি খলিল উর রহমান হাক্কানিকে।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন