বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দেশটির নতুন সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আফগানিস্তানের আগের সরকারের দেওয়া জাতীয় পরিচয়পত্র ও পাসপোর্ট এখনই অবৈধ করা হচ্ছে না। জাবিউল্লাহ বলেছেন, দেশটিতে আগের সরকারের নথিপত্রও (ডকুমেন্ট) বৈধ বলে বিবেচিত হবে।
আফগানিস্তানে এখনো পাসপোর্ট ও জাতীয় পরিচয়পত্র বিভাগ বন্ধ আছে। কেবল যাঁরা বায়োমেট্রিক তথ্য দিতে সম্মত, তাঁরাই পাসপোর্ট ও জাতীয় পরিচয়পত্র পান।

অঙ্গ কর্তন-মৃত্যুদণ্ডের বিধানের নিন্দায় যুক্তরাষ্ট্র

বার্তা সংস্থা এএনআই জানিয়েছে, আফগানিস্তানে শরিয়াহ আইনের বাস্তবায়ন নিয়ে তালেবানের সাম্প্রতিক বক্তৃতা-বিবৃতির বিষয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এই আইনের মধ্যে অপরাধের অভিযোগে অঙ্গ কর্তন ও মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের বিধান রয়েছে।
মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র নেড প্রাইস বলেছেন, এই আইন মানবাধিকারের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। আফগানিস্তানে মানবাধিকার নিশ্চিত করতে তাঁরা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে কাজ করছেন।

তালেবানকে এখনই স্বীকৃতি নয়: রাশিয়া

রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ গত শনিবার বলেছেন, তালেবানকে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দেওয়ার বিষয়টি এ মুহূর্তে বিবেচনায় নেই। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনের পাশাপাশি পৃথক বৈঠকে লাভরভ এ মন্তব্য করেন। জাতিসংঘে তালেবান তাঁদের দূত মনোনয়ন দেওয়ার পর লাভরভের পক্ষ থেকে এ মন্তব্য করা হয়। এক সংবাদ সম্মেলনে লাভরভ বলেন, তালেবানকে এখন স্বীকৃতি দেওয়ার প্রশ্নটি টেবিলে নেই।

তালেবান পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকি গত সোমবার জাতিসংঘে বিশ্বনেতাদের সামনে তাঁদের মনোনীত প্রার্থীকে ভাষণ দেওয়ার সুযোগ দিতে আহ্বান জানান। এ জন্য তালেবান তাদের দোহাভিত্তিক মুখপাত্র সুহাইল শাহিনকে আফগানিস্তানের জাতিসংঘ দূত হিসেবে মনোনয়ন দেয়।

এদিকে তালেবানের উৎখাত করা আফগান সরকারের জাতিসংঘের প্রতিনিধি গুলাম ইসাকজাই তার অ্যাক্রেডিটেশন নবায়ন করতে অনুরোধ করেছেন। অপরদিকে জাতিসংঘকে দেওয়া চিঠিতে তালেবান বলেছে, ক্ষমতাচ্যুত আফগান সরকার নিযুক্ত জাতিসংঘের স্থায়ী প্রতিনিধি গোলাম ইসাকজাইকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

জাতিসংঘে আফগানিস্তানের আসন পাওয়ার দাবির স্বীকৃতি দেওয়া নিয়ে কাজ করবে চীন, যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়াসহ ৯ সদস্যের ক্রেডেনশিয়ালস কমিটি। চলতি বছরের শেষে এ নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস বলেন, আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেতে চাচ্ছে তালেবান।

গত শনিবার লাভরভ আরও বলেন, আফগানিস্তানের সরকার যাতে প্রতিশ্রুতি রাখতে পারে বিশেষ করে একটি প্রকৃত প্রতিনিধিত্বমূলক সরকার গঠন এবং উগ্রবাদ ঠেকাতে রাশিয়া, চীন, পাকিস্তান ও যুক্তরাষ্ট্র একত্রে কাজ করছে।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন