‘সুগিনামি সিটি’ নামে পরিচিত টোকিওর বিশেষ ওয়ার্ডের মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন সাতোকো। পাঁচ লাখ বাসিন্দার এই ওয়ার্ডটি থেকে লিউভেনের দূরত্ব ৫ হাজার ৮০০ মাইল।

সাতোকো নেদারল্যান্ডসের আমস্টারডামভিত্তিক অলাভজনক প্রতিষ্ঠান ট্রান্সন্যাশনাল ইনস্টিটিউটে প্রকল্প সমন্বয়কারী হিসেবে কাজ করছেন।

মেয়র নির্বাচনের প্রচার চালাতে সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে সাতোকো জাপান গিয়েছিলেন।

সাতোকোর স্বামী অলিভিয়ার হোডেম্যান বলছেন, সুগিনামির মেয়র নির্বাচনের ফলাফল তাঁদের কাছে একটি বড় চমক হিসেবে এসেছে। তবে তাঁরা একেবারে জাপানে চলে যাওয়ার বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্ত নেননি। কারণ, তাঁদের ছোট ছেলে বেলজিয়ামের স্কুলে পড়ালেখা করছে।

অলিভিয়ার এক রেডিও সাক্ষাৎকারে বলেন, করোনা সংকট চলাকালে, যখন সবকিছুই অনলাইনে হচ্ছিল, তখন সাতোকো লিউভেন থেকে জাপানে অনেকগুলো অনলাইন বিতর্কে অংশ নেন। তিনি রাজনীতি নিয়ে বেশ আগ্রহী। ট্রান্সন্যাশনাল ইনস্টিটিউটে কাজের সুবাদে তিনি রাজনীতি সম্পর্কে অনেক কিছু জেনেছেন। তিনি জাপানে বেশকিছু প্রগতিশীল আন্দোলনের মাধ্যমে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন কন। এ কারণে অনেকে তাঁকে সুগিনামির মেয়র পদে লড়তে বলেন।

সাতোকো তাঁর জীবনের প্রথম ২৫ বছর জাপানেই ছিলেন। পরে তিনি নেদারল্যান্ডসে পাড়ি জমান। সেখান থেকে যান বেলজিয়ামে।

এক দশকের বেশি সময় ধরে সাতোকো বেলজিয়ামের লিউভেনে থাকছেন। সঙ্গে আছে স্বামী-সন্তান। এই দম্পতির দুটি সন্তান আছে।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন