default-image

মিয়ানমারে বিক্ষোভকারীদের ওপর আবার গুলি ছুড়েছে পুলিশ। এতে অন্তত দুজন আহত হন। আজ শনিবার দেশটির দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর মান্দালে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থল থেকে এএফপির প্রতিবেদক জানান, জান্তা সরকারের ধরপাকড়ের বিরুদ্ধে বিক্ষোভকারীরা মান্দালে শহরের একটি শিপইয়ার্ডে জড়ো হচ্ছিলেন। এ সময় পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। একপর্যায়ে নিরাপত্তা বাহিনী বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি ছুড়লে পরিস্থিতি সহিংস রূপ নেয়।  তবে এগুলো গুলি না রাবার বুলেট ছিল, তা জানা যায়নি।

১ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের সেনা অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে দেশটির বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ চলছে। কাঁদানে গ্যাস, জলকামান, রাবার বুলেট ছুড়ে বিক্ষোভকারীদের ওপর চড়াও হয়েছে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী। এর মধ্যে ৯ ফেব্রুয়ারি রাজধানী নেপিডোতে সেনাশাসনবিরোধী বিক্ষোভকালে গুলিতে আহত হন মিয়া থতে থতে খাইং নামের ২০ বছরের এক নারী। তিনি নেপিডোর একটি হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন ছিলেন। গতকাল শুক্রবার তিনি মারা যান। এ ঘটনার পর সহিংসতা থেকে সরে আসতে দেশটির সেনাবাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ওয়াশিংটন।

বিজ্ঞাপন
default-image

গতকালও ষষ্ঠ রাতের মতো মিয়ানমারে ইন্টারনেট বন্ধ রাখা হয়। ইন্টারনেট পর্যবেক্ষক নেটব্লকস বলছে, মিয়ানমারে উইকিপিডিয়া বন্ধ করে রাখা হয়েছে। ফেসবুক ও অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের বেশ কিছু আধেয়তেও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

বিক্ষোভকারীদের প্রতি মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর সহিংস আচরণের নিন্দা জানিয়েছে বিভিন্ন দেশ। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও কানাডা মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর শীর্ষ পর্যায়ের বেশ কয়েকজন জেনারেলের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।

গত নভেম্বরে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ তুলে ক্ষমতা দখল করেছে জান্তা সরকার। ওই নির্বাচনে সু চির দল নিরঙ্কুশ বিজয় অর্জন করে। আটকের পর থেকে নোবেলজয়ী সু চি কোথায়, কীভাবে আছেন, তা জানা যায়নি। সু চির বিরুদ্ধে দুটি অভিযোগ আনা হয়েছে। সু চির অভিযোগের শুনানি আগামী ১ মার্চ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন