বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত বৃহস্পতিবার বাগদাদে খাদেমির সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত ব্রেট ম্যাকগ্রুক বৈঠক করেন। সেখানে ইরাক থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়।
বর্তমানে ইরাকে ৩ হাজার ৫০০ বিদেশি সৈন্য রয়েছে। এর মধ্যে ২ হাজার ৫০০ মার্কিন সেনা। ২০১৪ সাল থেকে ইরাকে আইএস জঙ্গিদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সাহায্য করছেন এই সেনারা।

ওয়াশিংটনের বৈঠকে খাদেমি মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে নির্দিষ্ট সময়সীমার ওপর জোর দেবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। ইরাক থেকে মার্কিন সেনা পুরোপুরি প্রত্যাহারে আরও কয়েক বছর লেগে যেতে পারে।

আইএস জঙ্গিগোষ্ঠী যুক্তরাষ্ট্র ও ইরান উভয়ের শত্রু হলেও ইরাক নিয়ে এ দুটি দেশের মধ্যে দীর্ঘদিনের বিরোধ রয়েছে। সম্প্রতি ইরাকে মার্কিন স্থাপনা লক্ষ্য করে রকেট ও ড্রোন হামলা বেড়ে গেছে।

বাগদাদে মার্কিন দূতাবাস ও মার্কিন সেনাদের আইন আল-আসাদ বিমানঘাঁটি লক্ষ্য করে ১৪টি রকেট হামলার পরপরই খাদেমি ও ম্যাকগ্রুক বৈঠকে বসেন। মার্কিন লক্ষ্যবস্তুতে হামলার ক্ষেত্রে ইরানপন্থী সশস্ত্র গ্রুপ ও রাষ্ট্রীয় মদদপুষ্ট আধা সামরিক গ্রুপগুলোকে দায়ী করা হচ্ছে।

ইরাক-সিরিয়া সীমান্তে গত মাসে ইরানপন্থী মিলিশিয়াদের লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন