default-image

করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণে আসছে বলে আভাস পেয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। মহামারির বৈশ্বিক তথ্য–উপাত্ত বিশ্লেষণ করে সংস্থাটি বলেছে, টানা চার সপ্তাহ করোনার সংক্রমণ নিম্নমুখী। শুধু তা–ই নয়, টানা দুই সপ্তাহ করোনায় মৃত্যুও কমছে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু কমার এই প্রবণতাকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁরা বলছেন, মহামারি মোকাবিলার বৈশ্বিক প্রচেষ্টা যে সুফল দিতে শুরু করেছে, এটা তার আভাস।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার করোনা মহামারির সাপ্তাহিক হালনাগাদ তথ্য থেকে জানা গেছে, গত সপ্তাহে বিশ্বজুড়ে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৮৮ হাজার মানুষের। এর আগের সপ্তাহের চেয়ে এ সংখ্যা ১০ শতাংশ কম। এ ছাড়া গত সপ্তাহে বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়েছেন ৩১ লাখের কিছু বেশি। এর আগের সপ্তাহের চেয়ে এ সংখ্যা ১৭ শতাংশ কম। গত অক্টোবরের শেষ সপ্তাহের পর গত সপ্তাহেই বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে কম রোগী শনাক্ত হয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

করোনা মহামারির বিশ্বজুড়ে হালনাগাদ তথ্য প্রকাশ করছে ওয়ার্ল্ডোমিটারস ডট ইনফো। এই ওয়েবসাইটের তথ্যমতে, আজ বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়েছেন প্রায় ১০ কোটি ৭৫ লাখ। এর মধ্যে মারা গেছেন ২৩ লাখ ৫৩ হাজারের বেশি। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৭ কোটি ৯৪ লাখের বেশি করোনা সংক্রমিত রোগী। গতকাল মঙ্গলবার বিশ্বজুড়ে রোগী শনাক্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৮৩ হাজার ৭৯৮ জন। মারা গেছেন ১৩ হাজার ২১৪ জন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হালনাগাদ তথ্যে মন্তব্য করা হয়েছে, কিছু দেশে মহামারি পরিস্থিতির অবনতি ঘটলেও বৈশ্বিক পর্যায়ে সংক্রমণ ও মৃত্যু কমছে। বিষয়টি আশার সঞ্চার করছে।

করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যুতে যুক্তরাষ্ট্র সবার শীর্ষে। ওয়ার্ল্ডোমিটারসের তথ্যমতে, দেশটিতে ২ কোটি ৭৭ লাখের বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৪ লাখ ৭৬ হাজারের বেশি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সাপ্তাহিক হালনাগাদ তথ্য বলছে, যুক্তরাষ্ট্রে গত সপ্তাহে ৮ লাখ ৭১ হাজার ৩৬৫ জন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। যা আগের সপ্তাহের চেয়ে ১৯ শতাংশ কম।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্যমতে, ব্রাজিল, ফ্রান্স, রাশিয়া ও যুক্তরাজ্যেও গত সপ্তাহে তুলনামূলক কম করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। তবে সংক্রমণ কমার হার সবচেয়ে বেশি আফ্রিকায়। এই অঞ্চলে গত সপ্তাহে আগের সপ্তাহের তুলনায় ২২ শতাংশ কম রোগী শনাক্ত হয়েছেন। সংক্রমণ কমার হারে সবার পেছনে রয়েছে ভূমধ্যসাগরের পূর্বাঞ্চল। এই অঞ্চলে আগের সপ্তাহের তুলনায় গত সপ্তাহে সংক্রমণ কমেছে ২ শতাংশ।

সংক্রমণ কমার ক্ষেত্রে টিকা একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক তেদরোস আধানোম গেব্রেয়াসুস গত শুক্রবারের ব্রিফিংয়ে স্মরণ করিয়ে দেন, বিশ্বের ১৩০টি দেশে এখনো করোনার টিকা দেওয়াই শুরু হয়নি। তিনি মহামারি মোকাবিলায় টিকা কর্মসূচি দ্রুত ও ব্যাপকভাবে শুরু করার ওপর জোর দিয়েছেন।

বাংলাদেশেও করোনার সংক্রমণ পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণের পথে। টানা ৯ সপ্তাহ নতুন রোগী কমছে। আর ৭ সপ্তাহ ধরে মৃত্যুও কমছে। রোগী শনাক্তের হারও টানা তিন সপ্তাহ ৫ শতাংশের নিচে। তবে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দৃশ্যত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের পথে থাকলেও বিপদ কেটে গেছে, এমন

টা ভাবার সুযোগ নেই। কারণ, এখনো ট্রান্সমিশন (সংক্রমণ ছড়ানো) চলছে।এদিকে আজ বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় (মঙ্গলবার সকাল আটটা থেকে বুধবার সকাল আটটা পর্যন্ত) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে ৩৮৮ জনের। এ নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৩৯ হাজার ১৫৩ জন। এর মধ্যে ৮ হাজার ২৩৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর সুস্থ হয়েছেন ৪ লাখ ৮৫ হাজার ২৯০ জন।

বিজ্ঞাপন
এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন