বিজ্ঞাপন

ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব সিঙ্গাপুরের (এনইউসি) অধীনে ব্রিদোনিক্স নামে একটি স্টার্টঅ্যাপ প্রতিষ্ঠান অল্প সময়ের মধ্যে করোনা পরীক্ষার এ প্রযুক্তি নিয়ে এসেছে। মালয়েশিয়া সীমান্তের কাছের একটি শহরে এ প্রযুক্তি পরীক্ষা করে দেখা হবে। এ ব্যাপারে সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কাজ করছে ব্রিদোনিক্স।

করোনা শনাক্তে সিঙ্গাপুরে অ্যান্টিজেন র‍্যাপিড টেস্ট অনুসরণ করা হয়। এর পাশাপাশি শ্বাসযন্ত্রের মাধ্যমে নতুন করোনা পরীক্ষা পদ্ধতিও ব্যবহার করা হবে। করোনার এ নতুন পরীক্ষার অনুমোদনের বিষয়টি সিঙ্গাপুরের দ্য হেলথ সায়েন্সেস অথরিটির ওয়েবসাইটে নিশ্চিত করা হয়েছে।

ব্রিদোনিক্সের একজন প্রতিনিধি বলেন, মাত্র ৫ থেকে ২০ সিঙ্গাপুরি ডলারে এ টেস্ট করা যাবে। তবে সেটি সংখ্যার ওপর নির্ভর করবে। প্রতিষ্ঠানটি গত বছর বলেছিল, করোনা শনাক্তে নতুন এই প্রযুক্তির পরীক্ষামূলক প্রয়োগ ইতিমধ্যে করা হয়েছে। পরীক্ষায় প্রযুক্তিটির ৯০ শতাংশের বেশি কার্যকারিতা পাওয়া গেছে।

নতুন এ পরীক্ষা পদ্ধতি চালুর ব্যাপারে সিঙ্গাপুরের স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলোর সঙ্গে আলোচনা চলছে বলে ব্রিদোনিক্স জানিয়েছে। করোনা শনাক্তে একই ধরনের পরীক্ষা এরই মধ্যে চালু করেছে ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া ও নেদারল্যান্ডস।

সিঙ্গাপুরে বেশ কয়েক মাস স্থানীয়ভাবে করোনা শনাক্তের হার শূন্য বা এক অঙ্কে ছিল। তবে সম্প্রতি দেশটিতে শনাক্তের হার বেড়ে গেছে। করোনার ভারতীয় ধরনও শনাক্ত হয়েছে সেখানে। ফলে নতুন করে এক মাসের কড়াকড়ি আরোপ করেছে দেশটির কর্তৃপক্ষ।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন