বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রাইসি বলেন, আফগানিস্তানে আইএসের অবস্থান কেবল দেশটির জন্যই বিপজ্জনক নয়, তা এ অঞ্চলের জন্যও বিপজ্জনক।

মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পর দেশটির সেনাবাহিনীর ভঙ্গুর পরিস্থিতির সুযোগে গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেয় তালেবান।

আফগানিস্তানের সঙ্গে ৯০০ কিলোমিটার সীমান্ত রয়েছে ইরানের। ১৯৯৬ সালে তালেবান ক্ষমতায় থাকাকালে তাদের স্বীকৃতি দেয়নি ইরান। তবে এবারে ইরানের সুর অনেকটাই নরম।

ইরানের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আফগানিস্তানের ভবিষ্যৎ সমাধানে তালেবানকে অবশ্যই অংশ নিতে হবে।

আফগানিস্তানের নতুন শাসকেরা পুরো তালেবান সদস্যদের নিয়ে মন্ত্রিসভা গঠন করেছেন, যাঁদের অধিকাংশই পশতু জাতিগোষ্ঠীর।

রাইসি গত শনিবার আফগানদের প্রতিনিধিত্বমূলক সরকারের আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, কেবল একটি জাতিগোষ্ঠী বা রাজনৈতিক দল থেকে সরকার গঠন করলে আফগানিস্তানের সমস্যা সমাধান হবে না।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন