মিয়ানমারে বিক্ষোভ চলছে।
মিয়ানমারে বিক্ষোভ চলছে। ছবি: এএফপি

মিয়ানমারের ইয়াঙ্গুনে আজ মঙ্গলবার বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। বড় জমায়েত হলে ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দেয় দেশটির সেনাবাহিনী। তবে তা উপেক্ষা করে বিক্ষোভকারীরা সান চুয়াং এলাকায় জড়ো হন। খবর এএফপির।

ওই এলাকায় জমায়েতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। তারপরও শিক্ষকেরা ওই এলাকার প্রধান রাস্তায় সমবেত হয়ে মিছিল করেছেন। তাঁরা তিন আঙুল তুলে স্যালুট দেন।

এদিকে অভ্যুত্থানের পর গতকাল সোমবার প্রথম জনসমক্ষে আসেন জেনারেল মিন অং হ্লাইং। টেলিভিশনে দেওয়া ভাষণে তিনি অভ্যুত্থানের পক্ষে যুক্তি তুলে ধরে নতুন করে নির্বাচন দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে গতকাল টানা তৃতীয় দিনের মতো বিক্ষোভ হয়েছে। এতে যোগ দেন দেশটির হাজারো মানুষ। বৌদ্ধভিক্ষুরাও এদিনের বিক্ষোভে যোগ দেন। রাজধানীতে পুলিশ মারমুখী হয়ে ওঠে। তারা বিক্ষোভকারীদের ওপর জলকামান ব্যবহার করে।

default-image

সেনাশাসনের বিরুদ্ধে রাজপথে বিক্ষোভের পাশাপাশি দেশটিতে অসহযোগের ডাক দিচ্ছেন আন্দোলনকারীরা। অসহযোগের প্রতি সমর্থন দিন দিন জোরালো হচ্ছে। প্রথমে অসহযোগ শুরু করেন চিকিৎসকেরা। পরে শিক্ষকসহ অন্য পেশাজীবী ও সরকারি কর্মচারীরা এ অসহযোগে যোগ দেন।

১ ফেব্রুয়ারি সেনা অভ্যুত্থান ঘটিয়ে অং সান সু চিসহ দেশটির শীর্ষ রাজনৈতিক নেতাদের বন্দী করা হয়। মিয়ানমারের গত নভেম্বরে অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়া নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ তুলেছে দেশটির সেনাবাহিনী।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন