বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর পর্যটন বিভাগের মহাপরিচালক তারানাথ অধিকারী আজ রোববার বলেন, ‘কামি রিতা নিজেই নিজের রেকর্ড ভেঙেছেন এবং পর্বতারোহণে নতুন একটি বিশ্ব রেকর্ড করেছেন।’

কামি রিতার স্ত্রী জাংমু বলেন, তিনি তাঁর স্বামীর অর্জনে আনন্দিত। বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের ক্ষেত্রে নেপাল পর্বতারোহীদের ওপর প্রচণ্ডরকম নির্ভরশীল। ২০১৯ সালে অনেক বেশি মানুষকে পর্বতারোহণের অনুমতি দেওয়ায় এবং বেশ কয়েক আরোহীর মৃত্যু হওয়ায় বেশ সমালোচনার মুখে পড়েছিল হিমালয়ের দেশটি। চলতি বছর জনসমাগমের মৌসুমে (মে মাস পর্যন্ত) ৩১৬ জনকে এভারেস্টে আরোহণের অনুমতি দিয়েছে নেপাল। গত বছর এ সংখ্যা ৪০৮ ছিল, যা এ পর্যন্ত সর্বোচ্চ।

হিমালয়ান ডেটাবেইজের তথ্য অনুসারে, ১৯৫৩ সাল থেকে এ পর্যন্ত ১০ হাজার ৬৫৭ বার এভারেস্টের চূড়ায় উঠেছেন মানুষ। অনেকেই বেশ কয়েকবার করে এভারেস্ট জয় করেছেন। আর এ পর্যন্ত এভারেস্টের চূড়ায় আরোহণ করতে গিয়ে মারা গেছেন ৩১১ জন।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন