তখন থেকে ভবনটির দখল ছিল বিক্ষোভকারীদের হাতে। সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীরা প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ে ঢোকার আগে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষেকে উদ্ধার করে নিয়ে যান সেনাসদস্যরা। এরপর প্রথমে মালদ্বীপ এবং পরে সিঙ্গাপুরে পালিয়ে যান এবং পদত্যাগ করেন গোতাবায়া।

গত শুক্রবার রাতে সেনাসদস্যরা লাঠি ও স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র নিয়ে প্রেসিডেন্টের ভবন থেকে বিক্ষোভকারীদের উৎখাত করতে যান। বিক্ষোভকারীদের উৎখাতের এ নির্দেশ সেনাবাহিনীকে দিয়েছিলেন গোতাবায়ার উত্তরসূরি রনিল বিক্রমাসিংহে।

সেনাবাহিনীর এ অভিযানে অন্তত ৪৮ জন আহত হন। এ ছাড়া নয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। বিক্ষোভকারীরা প্রেসিডেন্ট ভবনের সামনে এ বছরের শুরুতে অস্থায়ী তাঁবু গেড়েছিলেন।

সেদিনের অভিযানে সেনারা সেসব তাঁবুও গুঁড়িয়ে দিয়েছিলেন। কলম্বোর এক পুলিশ কর্মকর্তা এএফপিকে বলেন, ‘ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা ভবনটিতে গিয়ে এর ক্ষয়ক্ষতি প্রমাণ সংগ্রহ করে এসেছেন। কাল থেকে সচল করার জন্য ভবনটি প্রস্তুত।’

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন