ভোটের জরিপকারী তিনটি ইসরায়েলি নেটওয়ার্ক তাদের পূর্বাভাসে নেতানিয়াহুর লিকুদ পার্টি সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ার কথা বলছে। পূর্বাভাস অনুযায়ী, দেশটির ১২০ সদস্যের পার্লামেন্ট নেসেটে লিকুদ পার্টি ৩০ থেকে ৩১ আসন পেতে পারে। এর বাইরে দেশটির ডানপন্থী অন্য দলগুলোর জোট আরও ৩০টি আসন পেতে পারে। তাদের সঙ্গে জোট বেঁধে নেতানিয়াহু ৬১ থেকে ৬২ আসন নিয়ে ক্ষমতায় যেতে পারেন। তবে সামান্য একটু এদিক–ওদিক হলেই নাটকীয়ভাবে তাঁদের দলের জন্য ক্ষমতায় আসার পথ বন্ধ হয়ে যেতে পারে। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান ইয়ার লাপিদের দল ইয়েস আতিদ ২২–২৪ আসন পেতে পারে। তবে নেতানিয়াহুবিরোধী সব দল মিলিয়েও এবার তাঁর সমান আসন হবে কি না, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।

বুথফেরত জরিপে এগিয়ে থাকায় ভোটারদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন নেতানিয়াহু। বিভিন্ন দল লিকুদ পার্টিকে সমর্থন দিতে শুরু করেছে। তবে ইয়ার লাপিদ বলেছেন, ভোট গণনা শেষ না হওয়া পর্যন্ত কোনো কিছুই চূড়ান্ত নয়।

টানা ১২ বছর ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী থাকার পর গত বছর নির্বাচনে হেরে যান নেতানিয়াহু। গত বছরের জুনে নেসেটে (পার্লামেন্ট) নতুন জোট সরকার গঠন নিয়ে বিতর্কের পর ভোট হয়। নতুন জোট সরকারের পক্ষে পড়ে ৬০ ভোট। বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর পক্ষে পড়ে ৫৯ ভোট। পরে ইয়ার লাপিদের মধ্যপন্থী দল ইয়েস আতিদের সঙ্গে জোট করে সরকার গঠন করে ইয়েমিনা পার্টি। কিন্তু সম্প্রতি দেশটির বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেট ও ইয়ার লাপিদের জোটে ফাটল দেখা দেয়। তাই এ নির্বাচনের আয়োজন করা হয়।