সিসিটিকে স্থানীয় বাসিন্দা নুয়ান বলেন, ‘খাবারের দাম অনেক বেশি। এ বছরের শুরু থেকেই এ দাম বাড়তে থাকে। বিশেষ করে জানুয়ারি, ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসে খাবারের দাম অনেক বেড়ে যায়। এরপর এপ্রিল মাস থেকে খাবারের দাম আরও বাড়ে। মে মাসের শেষ দিকে খাবারের দাম আকাশছোঁয়া হয়ে যায়। জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে খাবারের মূল্য আরও বাড়ে। পরিবহন খরচ বেড়ে গেলে তা আরও বাড়ে।

খাদ্যঘাটতির সঙ্গে যুক্ত হওয়া জ্বালানির ঘাটতিতে পরিবহনশিল্প ব্যাপক ধাক্কা খেয়েছে। কলম্বোর টুকটুক পরিবহনের চালক জীবন আরাজি বলেন, ‘গাড়ি নিয়ে কোনো ব্যবসা করা যাচ্ছে না। কারণ, তেলের সংকট। গত ২ মাসে মাত্র ১০ থেকে ১২ লিটার তেল পেয়েছি। এ তেল ব্যক্তিগত কাজেই লেগে যায়। তাহলে কীভাবে ব্যবসা করব? কোনো ব্যবসা হচ্ছে না।’

কয়েক দিনের অনিশ্চয়তার পর সিঙ্গাপুরে পালিয়ে গিয়ে গত বৃহস্পতিবার শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষে পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন। বিক্ষোভের মুখে গত বুধবার প্রথমে তিনি মালদ্বীপে পালিয়ে যান। বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে দেশটির ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। গত শুক্রবার দেশটির ক্ষমতাসীন দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, প্রেসিডেন্ট পদের জন্য রনিলকে সমর্থন দেওয়া হবে। ২০ জুলাই দেশটির প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন