এ বিষয়ে আকেফ মোহাজের বলেন, রাষ্ট্র পরিচালনার ক্ষেত্রে গত ১৫ মাসের অভিজ্ঞতায় আমরা দেখেছি, নারী–পুরুষ অবাধে পার্কে–জিমে যাচ্ছেন। অনেকেই ইসলামিক নিয়ম–নীতি মানতে চান না। অনেক নারী নিয়ম মেনে স্কার্ফ ও হিজাব পরতে চান না। তাই এই নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। সঙ্গে মাহরাম বা পুরুষ অভিভাবক থাকলেও আফগান নারীরা কাবুলের পার্ক, ব্যায়ামাগার ও বিনোদনকেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবেন না। 

২০২১ সালের আগস্ট মাসে আফগানিস্তানে ক্ষমতায় আসে তালেবান। এর পর থেকে দেশটিতে নারী স্বাধীনতা ও তাঁদের চলাচলে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়। এর মধ্যে রয়েছে ঘরের বাইরে বের হলে শরীর ঢেকে বের হওয়া, কোথাও ঘুরতে গেলে পুরুষ অভিভাবক সঙ্গে নেওয়া, শিক্ষার সুযোগ সীমিত করে আনা প্রভৃতি। 

এর আগে নারী–পুরুষের জন্য আলাদা বিনোদনকেন্দ্র খোলার ঘোষণা দিয়েছিল তালেবান সরকার। তালেবান জানায়, কাবুলের পার্ক ও বিনোদনকেন্দ্রে শুধু রোববার, সোমবার ও মঙ্গলবার নারীরা যেতে পারেবন। সপ্তাহের বাকি দিনগুলোয় যাবেন পুরুষেরা। 

তবে এই ঘোষণার পরও এবার নারীদের জন্য কাবুলের পার্ক, ব্যায়ামাগার ও বিনোদনকেন্দ্রের দরজা পুরোপুরি বন্ধ করে দিয়েছে তালেবান। সরকারের এমন সিদ্ধান্তে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন কাবুলের নারীরা।