সাবেক প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে দেশটির নাগরিকদের কাছে বেশ অজনপ্রিয় হলেও কিছু বিক্ষোভকারী বলছেন, রনিলকে একবার সুযোগ দিতে চান তাঁরা।

গতকাল বুধবার শ্রীলঙ্কার পার্লামেন্টে ভোটাভুটিতে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন রনিল বিক্রমাসিংহে। রনিল তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী দুই প্রার্থীর মোট ভোটের চেয়ে ৪৯ ভোট বেশি পান। পার্লামেন্টে ভোটাভুটিতে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলেও বিক্রমাসিংহে তাঁর দেশের সাধারণ জনগণের কাছে রাজাপক্ষে পরিবারের অনুগত বলে বিবেচিত।

নজিরবিহীন অর্থনৈতিক সংকটের কারণে শ্রীলঙ্কায় রাজাপক্ষেদের সরকার উৎখাতে রাজপথে নামেন বিক্ষোভকারীরা। একপর্যায়ে গদি ছাড়তে বাধ্য হন প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর পদে থাকা দুই ভাই গোতাবায়া ও মাহিন্দা রাজাপক্ষে। গোতাবায়া রাজাপক্ষে দেশ ছেড়ে পালান মালদ্বীপ হয়ে সিঙ্গাপুর। এরপর প্রথমে প্রধানমন্ত্রী এবং পরে ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্টের দায়িত্বে ছিলেন রনিল।

গতকাল পার্লামেন্টে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর রাজধানী কলম্বোয় একটি বৌদ্ধমন্দিরে প্রার্থনা শেষে বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশে রনিল বিক্রমাসিংহে বলেন, ‘তোমরা যদি সরকার উৎখাতের চেষ্টা করো, প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় দখল করে রাখো, তবে তা গণতন্ত্র নয়। এগুলো আইনের পরিপন্থী কাজ।’

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন