চিড়িয়াখানার একজন মুখপাত্র বলেন, ঘটনার পরপরই চিড়িয়াখানা লকডাউন করা হয়। একটি শাবককে ট্রাংকুলাইজড করা হয়। কয়েক মিনিটের মধ্যে অন্যগুলোকে নিরাপদে আস্তানায় নিয়ে আসে কর্তৃপক্ষ।

চিড়িয়াখানার নির্বাহী পরিচালক সিমন ডাফি এ ঘটনাকে ‘গুরুত্বপূর্ণ’ উল্লেখ করে জানান, এ ঘটনা তদন্ত হবে।

সিমন ডাফি স্থানীয় গণমাধ্যমকে বলেছেন, সিংহগুলো তাদের খাঁচাসংলগ্ন ছোট্ট এলাকায় চলে এসেছিল। সেখান থেকে ১০০ মিটার দূরত্বেই ছিলেন কিছু অতিথি। তাঁরা চিড়িয়াখানায় রাত্রি যাপন করছিলেন। ঘটনার পরপরই কর্মীরা সেখানে থাকা সবাইকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়েছে।

ডাফি জানিয়েছেন, লোকজনকে নিরাপদ দূরত্বে রাখতে সিংহের এলাকাটি ৬ ফুট উঁচু বেড়া দিয়ে ঘেরা। আর পুরো চিড়িয়াখানাটি কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে ঘেরা।

চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গেছে খাঁচা থেকে সিংহ পালানোর ১০ মিনিটের মধ্যে একজন কিপার অ্যালার্ম বাজিয়েছেন। শত ভাগ নিরাপত্তা নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত চিড়িয়াখানায় সিংহের প্রদর্শনী বন্ধ থাকবে।

অস্ট্রেলিয়ায় চিড়িয়াখানা থেকে প্রাণীদের বেরিয়ে যাওয়ার ঘটনা বিরল। ২০০৯ সালে সিডনির দক্ষিণে মোগো চিড়িয়াখানা থেকে একটি সিংহী বেরিয়ে গিয়েছিল। পরে মানুষের ওপর হামলা করতে পারে, এমন ভয়ে এটিকে গুলি করে হত্যা করা হয়।