প্রচণ্ড গরমে অতিষ্ঠ হয়ে চীনের বিভিন্ন বাসাবাড়ি, অফিস ও কারখানায় শীতাতপনিয়ন্ত্রিত যন্ত্রের ব্যবহার বেড়েছে। এতে জাতীয় বিদ্যুৎ গ্রিডে সমস্যা দেখা দেওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, গ্রীষ্মকালজুড়ে বিদ্যুতের চাহিদা নতুন উচ্চতায় পৌঁছাবে। চীনের জরুরি ব্যবস্থাপনাবিষয়ক মন্ত্রণালয় বলেছে, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে নিরাপদে কার্যক্রম পরিচালনার বিষয়টি বড় ধরনের পরীক্ষার মধ্যে পড়তে পারে।

জুলাইয়ে সাংহাইয়ের তাপমাত্রা ৪০ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছেছে। ১৮৭৩ সালে দেশটির তাপমাত্রা রেকর্ড রাখা শুরুর পর থেকে এ নিয়ে দ্বিতীয়বার তাপমাত্রা এমন উচ্চতায় পৌঁছাল। এর আগে ২০১৭ সালে এত উচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছিল।
সাংহাইয়ে গ্রীষ্মকালে তৃতীয়বারের মতো চরম গরমজনিত সতর্কতা জারি করতে হয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, মানবসৃষ্ট কারণে জলবায়ুর পরিবর্তন হওয়ায় বিশ্বজুড়ে ঘন ঘন তীব্র মাত্রার তাপপ্রবাহ দেখা দিচ্ছে। এগুলো দীর্ঘস্থায়ী হতে দেখা যাচ্ছে।
শিল্পযুগ শুরু হওয়ার পর থেকে প্রায় ১ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি উষ্ণ হয়েছে বিশ্ব। বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন দেশের সরকার যদি কার্বন নিঃসরণ কমানোর ব্যবস্থা না নেয়, তবে তাপমাত্রা বাড়তে থাকবে।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন