বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়, চীনের প্রতিষ্ঠান সিনোভ্যাক বায়োটেক ও সিনোফার্মের উদ্ভাবিত করোনার সম্ভাব্য টিকাগুলোসহ ১০টি সম্ভাব্য টিকার প্রদর্শন শুরু করেছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। বেইজিংয়ে চলতি সপ্তাহে আয়োজিত বাণিজ্য মেলায় এ প্রদর্শনী শুরু হয়েছে। বর্তমানে দুটি টিকারই তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা চলছে। চলতি বছরের শেষ নাগাদ এগুলো বাজারে ছাড়া যাবে বলে প্রত্যাশা করছে উদ্ভাবক প্রতিষ্ঠান দুটি।

সিনোভ্যাকের একজন মুখপাত্র বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, টিকা উৎপাদনে তাঁরা এরই মধ্যে একটি কারখানা প্রতিষ্ঠা করেছেন। এ কারখানায় বছরে ৩০ কোটি ডোজ টিকার উৎপাদন সম্ভব হবে।

এদিকে চীনের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সিনহুয়া জানায়, চীনের সেনাবাহিনীর গবেষকেরা করোনার একটি সম্ভাব্য টিকা উদ্ভাবন করেছেন। করোনাভাইরাস রূপান্তরিত হলেও এ টিকা কাজ করবে বলে দাবি করেছেন ওই গবেষকেরা।

জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির আজ সোমবারের তথ্য অনুযায়ী, চীনে ৯০ হাজার ৭০ জন করোনা রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছে ৮৪ হাজার ৮৯২ জন। মারা গেছেন চার হাজার ৭৩২ জন। আর বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮ লাখ ৮৯ হাজার ৬২৭। বিশ্বের ১১৮ দেশে এখন পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে ২ কোটি ৭১ লাখ ৬৪ হাজার ৫৫৭ জন।

চীন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন