বিজ্ঞাপন

আজ রোববার এএফপির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ম্যারাথনের ২০ থেকে ৩১ কিলোমিটারের মধ্যে দৌড় চলছিল। সেখানে ছিলেন ১৭২ জন দৌড়বিদ। হঠাৎই আবহাওয়া প্রতিকূল হয়ে ওঠে। ঝোড়ো বাতাস, হিমশীতল শিলাবৃষ্টির কবলে পড়েন দৌড়বিদেরা। তাপমাত্রা দ্রুতই কমে যায়। এ পরিস্থিতিতে শর্টস ও টি–শার্ট পরে ম্যারাথনে অংশ নেওয়া অনেকেই সাহায্য চেয়ে বার্তা পাঠান বলে জানিয়েছেন বাইয়িন শহরের মেয়র ঝাং য়ুচেন।

তিনি বলেন, বার্তা পেয়ে কর্তৃপক্ষ দ্রুত উদ্ধারকারী দল পাঠায়। তাঁরা ১৮ জনকে উদ্ধার করতে সক্ষম হন। মৃত্যু হয় ২১ দৌড়বিদের। তাঁদের মধ্যে চীনের অন্যতম খ্যাতনামা ম্যারাথন দৌড়বিদ লিয়াং জিং, হুয়াং গুয়ানজুন প্রমুখ রয়েছেন। এ ঘটনায় দীর্ঘ ম্যারাথনের আয়োজন বাতিল করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে।

বিবিসি জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত ১৫১ জন দৌড়বিদ নিরাপদে আছেন বলে জানানো হয়েছে। তবে তাঁদের মধ্যে আহত হয়েছেন আটজন। নিম্ন তাপমাত্রা ও হিমশীতল আবহাওয়ায় টি–শার্ট ও শর্টস পরে থাকায় অনেকেই হাইপোথারমিয়ায় ভুগছেন।

ম্যারাথনে অংশ নিয়েছিলেন মাও সুঝি। তিনি বলেন, ‘তখন আমি ২৪ কিলোমিটার দৌড় শেষ করেছি। হঠাৎই তুমুল বৃষ্টি নামে। সময় যত যাচ্ছিল, বৃষ্টি ততই জোরালো হচ্ছিল। আর কমছিল তাপমাত্রা। প্রচণ্ড শীতে আমি আর পর্বতে নিরাপদ জায়গায় আশ্রয় নিতে পারিনি। পরে হোটেলে ফিরে আসার সিদ্ধান্ত নিই।’

চীন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন