বেইজিংয়ের ফাংশান জেলায় প্রবল বর্ষণে দাশিহে নদীর ওপর নির্মিত একটি সেতু ধসে পড়ে
ছবি: এএফপি

সুপার টাইফুন ডকসুরির প্রভাবে প্রবল বৃষ্টিতে চীনের রাজধানী বেইজিং ও আশপাশের কয়েকটি প্রদেশে অন্তত ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। নিখোঁজ আছেন ১৯ জন। দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম গতকাল মঙ্গলবার জানায়, ভারী বৃষ্টিতে রাস্তা তলিয়ে গেছে। কাদায় ভরে গেছে আশপাশের এলাকাগুলো।

সুপার টাইফুন ডকসুরি প্রথমে আঘাত হানে ফিলিপাইনে। এরপর গত শুক্রবার এটি আঘাত হানে চীনের দক্ষিণ ফুজিয়ান প্রদেশে।

ঝড়ের প্রভাবে বেইজিং ও আশপাশের এলাকায় ভারী বৃষ্টি শুরু হয়। দেশটির আবহাওয়া দপ্তরের হিসাব বলছে, পুরো জুলাই মাসে গড়ে যে বৃষ্টি হয়, বেইজিংয়ে ৪০ ঘণ্টায় ওই পরিমাণ বৃষ্টি হয়েছে।

টানা ভারী বৃষ্টিতে বেইজিংয়ের শহরতলির বিস্তৃত এলাকায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এর মধ্যে কিছু শহরে সাম্প্রতিক কয়েক বছরে এমন ভারী বৃষ্টি হয়নি।

সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মেন্টেগু নদী-তীরবর্তী এলাকাগুলো। এসব এলাকার রাস্তা কর্দমাক্ত হয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে গেছে।

স্থানীয় এক বাসিন্দা বলেন, ২০১২ সালের পর এমন বন্যা তিনি আর দেখেননি। সেবার বন্যায় ৭৯ জনের মৃত্যু হয়েছিল। নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল হাজারো মানুষকে। সেবারের বন্যার চেয়ে এবারের পরিস্থিতি খারাপ বলে জানান ওই বাসিন্দা।

দাদিকে নিয়ে একটি হাসপাতালের সামনে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিলেন ২০ বছরের এক তরুণ। তিনি বলেন, ‘এটা প্রাকৃতিক দুর্যোগ। এখানে কারও কিছু করার নেই। আমাদের কঠোর পরিশ্রম করে সবকিছু পুনর্গঠন করতে হবে।’

ভারী বৃষ্টির কারণে পানির সরবরাহ ব্যবস্থা ভেঙে পড়ে। ফলে স্থানীয় লোকজন লাইনে দাঁড়িয়ে সুপেয় পানি সংগ্রহ করেন। মেন্টেগু জেলা, ১ আগস্ট
ছবি: এএফপি

রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধ্যম সিসিটিভি গতকাল জানায়, বৃষ্টিতে বেইজিংয়ে অন্তত ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাঁদের মধ্যে দুজন উদ্ধারকর্মী। উদ্ধার ও ত্রাণসহায়তা দেওয়ার সময় তাঁদের মৃত্যু হয়। এ ছাড়া বেইজিংয়ে ১৩ জন নিখোঁজ রয়েছেন।

বেইজিংয়ের সীমানা লাগোয়া হেবেই প্রদেশে নয়জনের মৃত্যু হয়েছে। নিখোঁজ রয়েছেন ছয়জন। এ ছাড়া উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় লিয়াওনিং প্রদেশে বৃষ্টিতে আরও দুজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

‘নিখোঁজ ও আটকে পড়া ব্যক্তিদের’ উদ্ধারে সব ধরনের পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট সি চিন পিং।

এদিকে রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদপত্র গ্লোবাল টাইমস বলছে, বেইজিংয়ে ঝুঁকিতে থাকা এক লাখ মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। সিসিটিভি জানায়, রাজধানী ও আশপাশের প্রদেশগুলোয় দুর্যোগকালীন সহায়তার জন্য ১১ কোটি ইউয়ান (১ ইউয়ান=১৫ .১৫ টাকা) বরাদ্দ করেছে সরকার।