সম্প্রতি চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সঙ্গে পাকিস্তানের ন্যাশনাল ব্যাংক সমঝোতা চুক্তি করেছে। এতে দুই দেশের মধ্যে আন্তসীমান্ত লেনদেন সহজ হবে। চীনের গ্রেট হল অব দ্য পিপলে শাহবাজ শরিফের সঙ্গে এক বৈঠকে সি বলেন, অর্থনৈতিক করিডোর নির্মাণে চীন ও পাকিস্তান কার্যকরভাবে সামনে এগিয়ে যাবে। এর মধ্যে রয়েছে গোয়াদরে সমুদ্রবন্দর নির্মাণের কাজও।

বর্তমানে পাকিস্তানের অবকাঠামো ও খনিতে খননকাজে যুক্ত রয়েছে চীন। এসব কিছু ৬৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের চীন-পাকিস্তান করিডরের আওতাধীন। সি আরও বলেন, দুই দেশ মিলে পাকিস্তানের রেলওয়ে হালনাদা প্রকল্প ও করাচি সার্কুলার রেলওয়ে প্রকল্পের কাজ করবে। এ ছাড়া দ্রুতগতির রেল স্থাপনে প্রযুক্তি স্থানান্তর করবে চীন। এসবই হবে সির বেল্ট অ্যান্ড রোড উদ্যোগের অধীন। সি আরও বলেন, পাকিস্তানের উন্নতমানের কৃষিপণ্য রপ্তানিকে স্বাগত জানাবে তাঁর দেশ। এ ছাড়া দেশটির সঙ্গে ডিজিটাল অর্থনীতি, ই-কমার্স ও নতুন জ্বালানি উৎস নিয়েও সহযোগিতা জোরদার করছে চীন।

গত অক্টোবরে সি তৃতীয় মেয়াদে চীনের ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির নেতা নির্বাচিত হওয়ার পর তাঁর সঙ্গে যাঁরা সাক্ষাৎ করেছেন, তাঁদের মধ্যে অন্যতম নেতা পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ।