অবশ্য নিউজ করপোরেশনের মালিকানাধীন একটি সাময়িকীর এক মুখপাত্র বলেছেন, ওয়াশিংটন পোস্ট বিক্রি করা হবে না। নিউজ করপোরেশন নিউইয়র্ক পোস্টেরও মালিক প্রতিষ্ঠান। বেজোসের মুখপাত্রও একই ধরনের কথা বলেছেন।

২০১৩ সালে ২৫ কোটি ডলার মূল্যে ওয়াশিংটন পোস্ট কিনেছিলেন বেজোস। নিউইয়র্ক পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়, ড্যান স্নাইডারের কাছ থেকে ফুটবল দল ওয়াশিংটন কমান্ডারস কিনে নেওয়ার পথ খুঁজছেন তিনি। কমান্ডারসকে নিশ্চিত বিনিয়োগ হিসেবে দেখছেন সম্ভাব্য বিনিয়োগকারীরা।

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, কমান্ডারসের মালিকানা কেনার ক্ষেত্রে বেজোসকে সমস্যার মধ্যে পড়তে হবে। কারণ, দলের অভ্যন্তরীণ বিতর্কিত ব্যবস্থাপনা নিয়ে সংবাদপত্রটি একের পর এক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। যৌন হয়রানির সুযোগ দিচ্ছেন বলে স্নাইডারসহ অন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের দায়ী করা হয়েছে।
ফুটবল দল ওয়াশিংটন কমান্ডারস কর্তৃপক্ষ গত সপ্তাহে সম্ভাব্য ক্রেতাদের কাছ থেকে প্রথম দফায় নিলাম মূল্য গ্রহণ করেছেন। তবে শোনা যাচ্ছে, প্রতিষ্ঠানটি জে-জেডের সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছে।

বেজোস প্রকাশ্যে বলে আসছেন, সংবাদপত্রের মালিকানা কেনাটা কখনো তাঁর লক্ষ্য ছিল না। আর্থিক স্থিতিশীলতা নিশ্চিত করতে এবং অনলাইন মাধ্যমের বিস্তারে সবাইকে উদ্বুদ্ধ করতে ২০১৩ সালে সংবাদপত্রটি কিনে নেওয়ার জন্য ডোনাল্ড গ্রাহাম তাঁকে রাজি করিয়েছিলেন। ডোনাল্ড গ্রাহাম হলেন ওয়াশিংটন পোস্টের সাবেক মালিক।
ফুটবলকে নিজের পছন্দের খেলা বলে উল্লেখ করে থাকেন বেজোস। তবে কখনো তাঁকে জাতীয় ফুটবল লিগের মালিকানা অর্জনের ইচ্ছা প্রকাশ করতে দেখা যায়নি।

বেজোস মালিকানা কিনে নেওয়ার পর সংবাদপত্রটির দ্রুত সমৃদ্ধি হতে দেখা গিয়েছিল। ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন বিদায় নেওয়ার পর এর সার্কুলেশন কমতে থাকে। কয়েক বছর ধরে মুনাফা অর্জনের পর ২০২২ সালে সংবাদপত্রটি ক্ষতির সম্মুখীন হয়।