বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রাশিয়ার সঙ্গে পশ্চিমা বিশ্বের উত্তেজনা বাড়ছে। সম্প্রতি রাশিয়া ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়ে একটি কৃত্রিম উপগ্রহ ধ্বংস করেছে। এ নিয়ে সমালোচনা করছে যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশ। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে অস্ত্র প্রতিযোগিতায় এগিয়ে থাকতে মস্কো সাম্প্রতিক বছরগুলোতে অস্ত্র উন্নয়নের কথা বলে আসছে।

হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র শব্দের গতির চেয়ে পাঁচ গুণের বেশি গতিতে চলতে পারে ও মাঝপথে কৌশল বদলাতে পারে বলে প্রথাগত ক্ষেপণাস্ত্রের তুলনায় একে নজরদারি ও বাধা দেওয়া কঠিন।

রাশিয়ার সামরিক বাহিনী বলেছে, অ্যাডমিরাল গরসকভ যুদ্ধজাহাজ থেকে জিরকন ক্ষেপণাস্ত্রটি নিক্ষেপ করা হয়, যা আর্কটিক সাগরে রাশিয়ার একটি লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানে। দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, ক্ষেপণাস্ত্রটি লক্ষ্যবস্তুতে সরাসরি আঘাত হানতে সক্ষম হয়েছে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে জিরকন ক্ষেপণাস্ত্র নিয়ে একাধিক পরীক্ষা চালিয়েছে মস্কো। এর আগে সাবমেরিন থেকে এ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানো হয়েছিল।

পুতিন ২০১৮ সালে জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে জিরকনসহ বেশ কিছু হাইপারসনিক অস্ত্রের কথা বলেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, এসব অস্ত্রের পাল্লা হাজার কিলোমিটার, যা সমুদ্র বা ভূপৃষ্ঠের যেকোনো লক্ষ্যে আঘাত হানতে সক্ষম।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন