বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

অস্ট্রিয়ায় করোনাভাইরাস সংক্রমণের রেকর্ড ও পশ্চিম ইউরোপের মধ্যে দেশটিতে সবচেয়ে কম টিকা গ্রহণ বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে এ কথা বলেন চ্যান্সেলর শ্যালেনবার্গ। ইউরোপজুড়ে আবারও সংক্রমণ বাড়তে থাকায় অনেক দেশই নানা বিধিনিষেধ জারি করছে।

পশ্চিম অস্ট্রিয়ার একটি রিসোর্টে অস্ট্রিয়ার ৯টি প্রদেশের গভর্নরদের সঙ্গে বৈঠকের পর শ্যালেনবার্গ বলেন, ‘আমরা করোনার পঞ্চম ঢেউ চাই না।’

সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত সপ্তাহে অস্ট্রিয়ায় প্রতি ১ লাখ মানুষের মধ্যে ৯৯০ জনের বেশি করোনা সংক্রমণের শিকার হয়েছেন। দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী ওলফগ্যাং ম্যাকেস্টেইন বলেন, করোনার লাগাম টানতে লকডাউন সর্বশেষ উপায়।

এদিকে লকডাউনে অস্ট্রিয়ার জনগণকে বাড়িতে থেকে কাজ করতে হবে। বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া দোকানপাট বন্ধ থাকবে। শিশুদের জন্য স্কুল খোলা থাকবে ১২ ডিসেম্বর পর্যন্ত। এরপর লকডাউনের বিষয়টি পুনর্মূল্যায়ন করা হবে।

ইউরোপের আরেক দেশ স্লোভেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী এডওয়ার্ড হেগার সোমবার থেকে টিকা না নেওয়া লোকজনের জন্য লকডাউনের ঘোষণা দিয়েছেন। চেক প্রজাতন্ত্রও বিভিন্ন বিধিনিষেধ জারি করেছে। নেদারল্যান্ডস আংশিক লকডাউন শুরু করেছে। জার্মানিও টিকা না নেওয়া লোকজনের জন্য কঠোর বিধিনিষেধ জারি করতে সম্মত হয়েছে।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন