default-image

ব্রিটিশ রাজপরিবার ছেড়ে যাওয়া হ্যারি-মেগান দম্পতির সিবিএস নিউজে সাক্ষাৎকার নিয়ে মন্তব্য করে বিদায় নিতে হলো আইটিভির উপস্থাপক পিয়ার্স মর্গানকে। আইটিভির ‘গুড মর্নিং ব্রিটেন’ শোর উপস্থাপক ছিলেন তিনি। খবর রয়টার্সের।

গত সোমবার প্রিন্স হ্যারির স্ত্রীর মেগান মার্কেলকে নিয়ে নিজের শোতে মর্গানের মন্তব্যের পর তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ জানান ৪১ হাজার দর্শক। এরপর এ নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম নিয়ন্ত্রক সংস্থা অফকম। এর ফলে ‘গুড মর্নিং ব্রিটেন’ ছেড়ে যেতে হলো মর্গানকে। ছয় বছর ধরে শোটি উপস্থাপনা করে আসছিলেন তিনি।

বিজ্ঞাপন
default-image

গত রোববার সিবিএস নিউজে অপরাহ্‌ উইনফ্রেকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রাজপরিবারে থাকাকালে মেগান মার্কেল তাঁর মানসিক বিপর্যস্ততার বিষয়ে প্রকাশ করেছিলেন। পরদিন মর্গান তাঁর শোতে মন্তব্য করেন, মেগানের কথা তিনি বিশ্বাস করেন না।

উইনফ্রেকে মেগান মার্কেল জানিয়েছিলেন, ব্রিটিশ রাজপরিবারের জৌলুশপূর্ণ জীবনে থেকেও তিনি ভালো ছিলেন না। পরিবারের মধ্যে থেকেও তিনি এত বিচ্ছিন্ন ও নিঃসঙ্গ হয়ে পড়ছিলেন যে একটা সময় বেঁচে থাকার ইচ্ছাই হারিয়ে ফেলেন। ভাবছিলেন আত্মহত্যা করবেন। সহায়তা পেতে বাকিংহাম প্যালেসের ঊর্ধ্বতনদের কাছেও গিয়েছিলেন মেগান। তাঁর দাবি, তাঁদের কাছ থেকে তিনি প্রত্যাখ্যাত হয়েছিলেন।

পরদিন মর্গান তাঁর শোতে মন্তব্য করেন, ‘আপনি (মেগান) কার কাছে গিয়েছিলেন? তাঁরা আপনাকে কী বলেছিলেন? আমি দুঃখিত, মেগান মার্কেলের একটা কথাও আমি বিশ্বাস করি না।’

মর্গান বলেন, ‘আমি মনে করি, তাঁর এ আক্রমণ আমাদের রাজপরিবারের বিরুদ্ধে ঘৃণাপ্রসূত।’

বিবিসি অনলাইনের খবরে বলা হয়, মেগান নিয়ে এমন মন্তব্য করায় মর্গানের বিরুদ্ধে ৪১ হাজার অভিযোগ জমা পড়ে অফকমের কাছে। এ নিয়ে সংস্থাটি তদন্ত শুরু করলে মর্গানের বিদায়ের বিষয়টি এক ঘোষণায় নিশ্চিত করে আইটিভি।

ব্রিটিশ টিভি চ্যানেলটির এক মুখপাত্র বিবিসিকে বলেন, আইটিভির সঙ্গে আলোচনার পিয়ার্স মর্গান সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে এখন তাঁর ‘গুড মর্নিং ব্রিটেন’ শো ছাড়ার সময় হয়েছে। আইটিভি তাঁর এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

বিজ্ঞাপন
ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন