বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সাপ্পি কারাগারের প্রধান দোনাতো কেপিস বলেন, কারারক্ষীর সঙ্গে তর্কাতর্কির একপর্যায়ে ২৮ বছর বয়সী কয়েদি তিনটি গুলি করেন। তবে এ ঘটনায় কারোর কোনো ক্ষতি হয়নি। তিনি আরও বলেন, গোসল করার জন্য ওই কয়েদিকে সেল থেকে বের হওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়। এ সময় দরজা খুলে দেওয়া হলে ওই কয়েদি নিজের কাছে থাকা একটি বন্দুক একজন কারারক্ষীর দিকে তাক করেন। বন্দুকের মুখে কারারক্ষীর কাছ থেকে তিনি অন্য সেলের চাবি নেন। সেই চাবি দিয়ে নিজের শত্রুদের সেলের দরজা খোলার চেষ্টা করেন। কিন্তু তাতে সফল না হয়ে একপর্যায়ে ওই কয়েদি ওই সেলের দরজায় গুলি করেন।

ঘটনার এখানেই শেষ নয়। দরজায় গুলির পরপরই ওই মাফিয়া সদস্য তাঁর কাছে থাকা একটি অবৈধ মুঠোফোন দিয়ে তাঁর আইনজীবীকে ফোন করেন। এ সময় ওই আইনজীবী তাঁকে অবৈধ বন্দুকটি কারা কর্তৃপক্ষের কাছে জমা দিতে বলেন।

কিন্তু হাই–সিকিউরিটি কারাগারের মধ্যে কীভাবে অস্ত্র ও মুঠোফোন এল তা নিয়ে দেখা দেয় উদ্বেগ। এই বিষয়ে কেপেস বলেন, ‘অস্ত্রটি ড্রোনের মাধ্যমে এসেছিল বলে আমরা ধারণা করছি।’ সাম্প্রতিক সময়ে ইতালির কারাগারে দুর্বল ব্যবস্থাপনার কারণে ধারাবাহিকভাবে এই ধরনের ঘটনায় দেশটিতে উদ্বেগ বাড়ছে।

কাউন্সিল অব ইউরোপের ২০২০ সালের প্রতিবেদনে অনুযায়ী, ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোতে ইতালির কারাগারগুলোতে ধারণক্ষমতার তুলনায় অনেক বেশি কয়েদি থাকেন। দেশটির কারাগারগুলোতে ১০০ জনের জায়গায় ১২০ জন কয়েদি রয়েছেন। অপরদিকে ফ্রান্সে থাকেন ১১৫ জন এবং স্পেনে থাকেন ৭০ জনের কিছু বেশি কয়েদি।

মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন