default-image

যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের চূড়ান্ত ফল এখনো বাকি। কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্পকে গতকাল বুধবারই বিজয়ী হিসেবে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন স্লোভেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী। বিষয়টি নিয়ে এখন বিপাকে তিনি।

স্লোভেনিয়া ‘ট্রাম্পের শ্বশুরবাড়ি’। ট্রাম্পের স্ত্রী মেলানিয়া ১৯৭০ সালে সাবেক যুগোস্লাভিয়া অর্থাৎ বর্তমানের স্লোভেনিয়ায় জন্মগ্রহণ নেন।

স্লোভেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী ইয়ানেস ইয়ানসা মার্কিন নির্বাচনের চূড়ান্ত ফল ঘোষণার আগেই ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সম্ভাব্য বিজয়ী হিসেবে শুভেচ্ছা জানান।

নির্বাচন হচ্ছে আটলান্টিকের অপর পারে। গত চার বছরে ট্রাম্প জামানায় ট্রান্স আটলান্টিক সম্পর্কে অনেকটাই ভাটা পড়েছে। তবু নির্বাচন নিয়ে আটলান্টিকের পূর্ব পারের ইউরোপের বেশির ভাগ মানুষের উৎসাহে ভাটা নেই।

স্থানীয় সময় গতকাল বুধবার প্রেসিডেন্ট পদে বিজয়ের জন্য ট্রাম্পকে টুইট করে অভিনন্দন জানান স্লোভেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী। অতি উৎসাহী এ আচরণের জন্য ইয়ানেস ইয়ানসাকে তিরস্কৃত করা হয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সদর দপ্তর থেকে।

বিজ্ঞাপন

জার্মানির টেলিভিশন চ্যানেল এআরডি অনলাইন সংস্করণে এই বিষয়ে জানানো হয়েছে, ইইউ সদর দপ্তর স্লোভেনিয়ার প্রধানমন্ত্রীর এই অতি উৎসাহী আচরণে হতবাক হয়েছে। ব্রাসেলস থেকে জানানো হয়েছে, যখন যুক্তরাষ্ট্রে ভোট গণনা শেষই হয়নি, তখন এভাবে কাউকে বিজয়ী বলে সম্বোধন করে বিবৃতি দেওয়া কোনো গণতান্ত্রিক আচরণের মধ্য পড়ে না। স্লোভেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী দেশটির কট্টরবাদী জাতীয়তাবাদী দলের প্রধান। তিনি প্রতিবেশী দেশ হাঙ্গেরির আরেক কট্টরবাদী ভিক্টর ওরবানের ঘনিষ্ঠ মিত্র হিসেবে বিবেচিত।

এদিকে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার বিকেলে ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত ২৭ দেশের প্রতিনিধিরা ব্রাসেলসে মার্কিন নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে মতবিনিময় করবেন। গত চার বছরে ট্রাম্প আমলে মার্কিন-ইউরোপীয় সম্পর্কে অনেক বিষয় তিক্ততায় রূপ নিয়েছে।

ইউরোপীয় নেতারা ইতিমধ্যেই পুরোনো ঐতিহ্যবাহী ট্রান্স আটলান্টিক সম্পর্ক ত্যাগ করে নিজেদের ঐক্য ও শক্তিতে বলীয়ান হওয়ার চেষ্টা করছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0