বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী অবিলম্বে সহিংসতা বন্ধের এবং কূটনৈতিক আলোচনা ও সংলাপের পথে ফিরে আসার জন্য সব পক্ষের সমন্বিত প্রচেষ্টার আহ্বান জানিয়েছেন।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নির্দেশের পর বৃহস্পতিবার বেলারুশ ও ক্রিমিয়া থেকে ইউক্রেনে প্রবেশ করেন রুশ সেনারা। দেশটির অন্তত ১২টি শহরে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। প্রথম দিনই ইউক্রেনের ৭৪টি সামরিক স্থাপনা ধ্বংস করা হয়েছে বলে দাবি করেছে রাশিয়া।

এখন পর্যন্ত রাশিয়ার হামলায় ইউক্রেনের ৪০ সেনাসদস্য ও ১০ বেসামরিক লোক নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে কিয়েভ। পাল্টা জবাবে রাশিয়ার ছয়টি বিমান ও একটি হেলিকপ্টার ভূপাতিত করা হয়েছে বলে দাবি করেছে দেশটি।

এ ছাড়া রাশিয়া-সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদীরা একটি শহরে হামলা করার পর তা প্রতিহত করার সময় প্রায় ৫০ জন ‘দখলদার রুশ’ নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী। রুশ হামলায় সৃষ্ট পরিস্থিতি সামাল দিতে দেশে সামরিক আইন জারি করেছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন