বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মেট্রো ইস্তাম্বুলের গ্রাহক সম্পর্কবিষয়ক বিভাগের প্রধান আভলিন অ্যারল বলেন, বোজি ভালোভাবে জানে সে কোথায় যাবে, কোথায় নামবে। ইস্তাম্বুল শহরের এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে ঘুরে বেড়ানো বোজির নিত্যদিনের ঘটনা। কুকুরটি প্রতিদিন আনুমানিক ৩০ কিলোমিটার ভ্রমণ করে। চলার পথে সে কয়েকটি মেট্রোস্টেশন পাড়ি দেয়। অন্তত দুটো ফেরিতে চড়ে।

নিয়ম মেনে একাকী একটি কুকুরকে এভাবে ভ্রমণ করতে দেখে অবাক হন অনেকেই। কয়েক মাস ধরে ইস্তাম্বুলের ভ্রমণকারীরা বোজির সঙ্গে সেলফি তুলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করতে শুরু করেন। এভাবেই শহরটিতে পরিচিতি পেয়ে যায় কুকুরটি। এখন বোজির নামে টুইটার ও ইনস্টাগ্রামে অ্যাকাউন্ট রয়েছে। সেখানে হাজারো মানুষ বোজিকে অনুসরণ করে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি পোস্ট দেখে বোজির বিষয়টি জানতে পারেন আলোকচিত্রী ক্রিস ম্যাকগ্রাথ। সম্প্রতি তিনি বোজিকে অনুসরণ করে পুরো একটি দিন কাটান। বোজির ভ্রমণের ছবি তোলেন। ম্যাকগ্রাথ বলেন, যানবাহন ছাড়া ভ্রমণ করতে পছন্দ করে না বোজি। বাস, ট্রেন, ফেরি—সব ধরনের যানবাহনে চড়ে ইস্তাম্বুলে ঘুরে বেড়ায় কুকুরটি।

বোজিকে এখন ইস্তাম্বুলের অনেক মানুষ চিনে ফেলেছে। তাই বাসে, ট্রেনে, ফেরিতে কুকুরটিকে দেখলে কেউ তাড়িয়ে দেয় না। এমনকি কোনো রেস্তোরাঁয় গেলে তাকে খাবার দেওয়া হয়। অনেকে অবাক চোখে দেখে কুকুরটির কর্মকাণ্ড। অনেকে কাছে গিয়ে ছবি তোলে।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন