বিজ্ঞাপন

১৯৯৭ সালের আগস্ট মাসে প্যারিসে গাড়ি দুর্ঘটনায় নিহত হন প্রিন্সেস ডায়ানা।
অ্যাপল টিভিতে ‘দ্য মি ইউ কান্ট সি’ সিরিজে হ্যারি বলেন, ২৮ থেকে ৩২ বছর পর্যন্ত সময়টা ছিল তাঁর জীবনে ভয়ংকর। সে সময় তিনি মানসিক চাপ ও উদ্বেগে ভুগছিলেন।
হ্যারি বলেন, সে সময় তিনি মদ্যপান করতে চাইতেন। মাদক নিতে চাইতেন। তিনি মায়ের কথা ভুলে থাকতে চাইতেন।

মায়ের শেষকৃত্যের সময় প্রিন্স হ্যারি তাঁর বাবা, চাচা, দাদা ও ভাইয়ের সঙ্গে কফিনের পেছনে হেঁটেছিলেন। হ্যারি বলেন, সে সময় মেনে নিতে কষ্ট হয়েছিল যে মায়ের সঙ্গে আর কখনো তাঁর দেখা হবে না।

মানসিক ওই হতাশার সময় পরিবারের সদস্যরা তাঁকে খেলাধুলা করে সহজভাবে জীবন কাটাতে পরামর্শ দিয়েছিলেন বলে জানান প্রিন্স হ্যারি। তিনি বলেন, তিনি মায়ের কথা ভুলতে পারেননি। মায়ের মৃত্যুর ওই সময়টায় তিনি আটকে গিয়েছিলেন।

এক বছর আগে হ্যারি ও তাঁর মার্কিন স্ত্রী মেগান রাজকাজ ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন। রাজপরিবারের কারও সঙ্গে কোনো আলোচনা না করে তাঁদের নেওয়া এ সিদ্ধান্তে তোলপাড় সৃষ্টি হয় রাজপরিবারে। ওই সিদ্ধান্তে বিস্মিত হয়েছিলেন বিশ্ববাসী। এই দম্পতি জানিয়েছিলেন, তাঁরা স্বাবলম্বী হয়ে বাঁচতে চান।

রাজকীয় দায়িত্ব ছাড়ার পর গত বছর হ্যারি ও মেগান যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসে চলে যান। এরপর থেকে নতুন জীবন শুরু করেছেন এ দম্পতি।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন