বিজ্ঞাপন

অস্ট্রেলিয়ায় জীবিত বয়স্কতম ব্যক্তির মুকুট এর আগে ছিল জ্যাক লকেটের দখলে। অবশ্য এ মুকুট খুব অল্প দিনই তিনি দখলে রাখতে পেরেছিলেন। ২০০২ সালে ১১১ বছর ১২৪ দিন বয়সে তিনি মারা যান। গত সোমবার জ্যাককে ছাড়িয়ে যান ক্রুগার। জ্যাকের আগে বয়স্কতম নাগরিকের মুকুট ছিল ক্রিস্টিন কুকের দখলে। তিনিও ২০০২ সালে মারা যান। মৃত্যুর সময় তাঁর বয়স হয়েছিল ১১৪ বছর
১৪৮ দিন। তাঁর মৃত্যুর কয়েক দিন পরই মারা যান জ্যাক লকেট।

অস্ট্রেলিয়ান ব্রডকাস্টিং করপোরেশনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ক্রুগার বলেছেন, তাঁকে দীর্ঘায়ু হতে সাহায্য করেছে সপ্তাহে অন্তত একবার মুরগির মাথা খাওয়ার বিষয়টি। তিনি বলেন, ‘আপনারা জানেন, মুরগির একটা মাথা আছে। আর তাতে আছে ঘিলু। আর মুরগির এই ঘিলু অত্যন্ত সুস্বাদু ছোট জিনিস। কেবল একটি ছোট কামড়ের জিনিস।’

ক্রুগারের ৭৪ বছর বয়সী ছেলে ক্রেগ অবশ্য তাঁর বাবার দীর্ঘায়ুর জন্য সহজ গ্রাম্য জীবনযাপনকেই কৃতিত্ব দেন।

নার্সিং হোমের ব্যবস্থাপক মেলানি ক্যালভার্ট ক্রুগারের আত্মজীবনী লিখছেন। তিনি বলেন, ‘ক্রুগার সম্ভবত এই নার্সিং হোমের তীক্ষ্ণ স্মৃতিশক্তির বাসিন্দাদের একজন। বয়স ১১১ বছর ছাড়িয়ে গেলেও তাঁর স্মৃতি এখনো তরতাজা।’

অস্ট্রেলিয়ায় ক্রুগারের সবচেয়ে বয়স্ক ব্যক্তি হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অস্ট্রেলিয়ান বুক অব রেকর্ডসের প্রতিষ্ঠাতা জন টেলর।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন