বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রাশিয়ায় সাধারণত অজনপ্রিয় গভর্নরদের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দিতে দেখা যায়। কিন্তু এখন গভর্নরদের নিজে থেকে পদত্যাগ করতে দেখা গেল।

রাশিয়ার আঞ্চলিক গভর্নররা নির্বাচিত হয়ে থাকেন। তবে তাঁরা রাজনৈতিকভাবে ক্রেমলিনের অধীনস্থ।

কয়েকজন বিদায়ী গভর্নর এমন কিছু অঞ্চলের প্রতিনিধিত্ব করছেন, যেখানে ক্ষমতাসীন ইউনাইটেড রাশিয়া জোট গত বছরের পার্লামেন্ট নির্বাচনে কম ভোট পেয়েছে।

মস্কোভিত্তিক চিন্তন প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর দ্য ডেভেলপমেন্ট অব রিজওনাল পলিটিকসের প্রধান ইলিয়া গ্রাশচেনকভ বলেন, পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার কারণে অর্থনৈতিক অবস্থা খারাপ হতে যাচ্ছে, এমন পূর্বাভাসের মধ্যে দুর্বল গভর্নরদের সরিয়ে দিচ্ছে ক্রেমলিন।

ইলিয়া গ্রাশচেনকভ বলেন, অর্থনীতি পুনর্গঠনের প্রয়োজন দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে সেসব অঞ্চলের, যেখানে পশ্চিমাদের অর্থনৈতিক প্রভাব বেশি। বিকল্প হিসেবে তুলনামূলক তরুণদের এসব স্থানের গভর্নরদের স্থলাভিষিক্ত করা প্রয়োজন।

রাশিয়ার অর্থ মন্ত্রণালয় বলছে, ২০২২ সালে দেশটির অর্থনীতি ৮ দশমিক ৮ শতাংশ সংকুচিত হতে পারে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে হামলা শুরু করে রাশিয়া। এই হামলার প্রতিক্রিয়ায় রাশিয়ার ওপর একের পর নিষেধাজ্ঞা দিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলো। তারা নিষেধাজ্ঞা দিয়ে রাশিয়ার অর্থনীতি ধসিয়ে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন