বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত মার্চে ‘অবন্ধুসুলভ’ দেশগুলোকে রাশিয়া থেকে গ্যাস আমদানির জন্য শর্ত বেঁধে দেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। পুতিন বলেন, ক্রেতাদের গ্যাসের মূল্য রুবলে পরিশোধ করতে হবে। এ জন্য তাদের গাজপ্রমের ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট খুলে ইউরো ও ডলারে পরিশোধিত অর্থ রুবলে রূপান্তর করতে হবে। গাজপ্রমের ওই ব্যক্তি বলেন, গ্যাসের মূল্য পরিশোধে রাশিয়ার এমন শর্ত পূরণের জন্য ইউরোপের ১০টি কোম্পানি ইতিমধ্যে গাজপ্রমে তাদের ব্যাংক হিসাব খুলেছে।

গ্যাসের পাইপলাইন দিয়ে ইউরোপের ২৩ দেশে গ্যাস সরবরাহ করে রাশিয়া। তবে শর্ত মেনে রুবলে মূল্য পরিশোধ করতে না পারায় গতকাল থেকে বুলগেরিয়া ও পোল্যান্ডে গ্যাস সরবরাহ পুরোপুরি বন্ধ করে দিয়েছে রাশিয়ার গাজপ্রম। ওই ব্যক্তির ভাষ্য অনুযায়ী গাজপ্রম বলছে, তারা ইইউয়ের নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করেনি।

ইউক্রেনে রুশ বাহিনীর শুরুর পর মস্কোর ওপর একাধিক নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ইইউ। এর পরিপ্রেক্ষিতে রাশিয়া দেশটি থেকে গ্যাস আমদানির ক্ষেত্রে অবন্ধুসুলভ দেশগুলোর জন্য এ শর্ত দেয়। ১ এপ্রিল থেকে তা কার্যকর হয়েছে। তবে ইইউ জোট সদস্যদের বলেন, ক্রেমলিন যে প্রস্তাব দিয়েছে তাতে মস্কোর ওপর দেওয়া নিষেধাজ্ঞার লঙ্ঘন হবে। তবে এরপরও ইউরোপের চার দেশ রুবলে গ্যাসের মূল্য পরিশোধ করছে। তবে ওই ব্যক্তি দেশ চারটির নাম বলেননি।

ইউক্রেনে হামলার পর কোন কোন দেশ বন্ধু, আর কোন কোন দেশ বন্ধু নয়—এমন তালিকা করেছে রাশিয়া। এ তালিকায় মূলত রাশিয়ার আগ্রাসনের বিরোধিতাকারীদের রাখা হয়েছে। রুশ সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বন্ধু নয়, এমন রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তির সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক এখন থেকে পর্যালোচনা করবে সরকারের একটি কমিশন। তারই অংশ হিসেবে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করা হচ্ছে।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন