সম্প্রতি ৪২ বছর বয়সী ব্রিটিশ মাছশিকারি অ্যান্ডি হ্যাকেট ফ্রান্সের শ্যাম্পেন এলাকার ব্লু ওয়াটার লেকে বড়শি দিয়ে মাছ শিকার করছিলেন। এ লেকটি বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় কার্প মৎস্যকেন্দ্রগুলোর একটি। হঠাৎই তাঁর বড়শিতে ধরা পড়ে বিশালাকারের গোল্ড ফিশটি। এর ডাক নাম দেওয়া হয়েছে ক্যারট।

ওরচেস্টারশায়ারভিত্তিক একটি কোম্পানিতে পরিচালক পদে নিযুক্ত আছেন হ্যাকেট। তিনি বলেন ‘আমি সব সময়ই জানতাম সেখানে (ব্লু ওয়াটার লেক) ক্যারট আছে। তবে কখনো তাকে ধরতে পারব বলে ভাবিনি।’

ব্লু ওয়াটার লেকের মুখপাত্র জ্যাসন কাউলার ইউএসএ টুডেকে বলেন, যে গোল্ড ফিশটি পাওয়া গেছে সেটির বয়স ২০ বছর। ১৫ বছর আগে এটিকে ওই লেকে ছাড়া হয়। তখন থেকে এটি বড় হচ্ছিল, কিন্তু এটিকে খুব একটা দেখা যেত না। কৌশলে পালিয়ে বেড়াত।

তবে চলতি মাসের শুরুর দিকে মাছটি হ্যাকেটের বড়শিতে ধরা পড়ে। গোল্ড ফিশটি ধরার ওই মুহূর্তটিকে স্মরণ করে হ্যাকেট বলেন, ‘এটি যখন আমার বড়শিতে টান দিল তখনই বুঝে গিয়েছিলাম বড় কোনো মাছ হবে। বড়শিতে ধরা পড়া মাছটি পানির মধ্যে এপাশ–ওপাশ আর ওপর-নিচ করছিল।’

হ্যাকেট আরও বলেছেন, মাছটিকে ডাঙায় তুলে আনতে তাঁর ২৫ মিনিটের মতো সময় লেগেছে। তাঁর মতে, নিছক ভাগ্যক্রমেই এ ধরনের মাছ ধরা যায়। বর্তমানে যেটিকে বিশ্বের সবচেয়ে বড় গোল্ড ফিশ বলে বিবেচনা করা হয়, সে মাছটি ২০১৯ সালে মিনেসোটার বাসিন্দা জ্যাসন ফুগেট ধরেছিলেন।

মাছটি ধরার পর তা নিয়ে ছবি তোলেন হ্যাকেট। এরপর আবার তা লেকে ছেড়ে দেন। এরপর এক কাপ চা পান করে রঙিন এ মাছটিকে ধরতে পারার আনন্দ উদ্‌যাপন করেন তিনি।

জ্যাসন কাউলার মাছশিকারি হ্যাকেটকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। বলেছেন, ক্যারট ‘বর্তমানে দিব্যি আছে’।

২০১৯ সালে কেন্টাকির এক জেলে ২০ পাউন্ড ওজনের একটি কই কার্প মাছ ধরেছিলেন। বড়শিতে শুধু বিস্কুটের টোপ ফেলেই তিনি মাছটি ধরেছিলেন।