এ সময় নিহত ব্যক্তিদের স্বজনেরা আদালতকক্ষে কান্নায় ভেঙে পড়েন। দণ্ডিত তিনজনই পলাতক। তাঁরা হলেন রুশ গোয়েন্দা সংস্থার সদস্য ইগর গিরকিন ও সের্গেই দুবিনস্কি এবং ইউক্রেনের বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা লিওনিড খারচেঙ্কো। তিনজনই রাশিয়ায় আছেন বলে মনে করা হচ্ছে। তাঁদের হস্তান্তরের সম্ভাবনা নেই।

এই তিনজন রুশ সামরিক বাহিনীর বিইউকে ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা ইউক্রেনে আনতে সহায়তা করেছেন বলে তদন্তে উঠে এসেছে। ওই ক্ষেপণাস্ত্র দিয়েই উড়োজাহাজটি ভূপাতিত করা হয়েছিল। তবে তাঁদের কেউ ক্ষেপণাস্ত্রটি ছোড়েননি।

চতুর্থ সন্দেহভাজন রুশ নাগরিক ওলেগ পুলাতভকে সব অভিযোগ থেকে খালাস দেওয়া হয়েছে। ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হানলে উড়োজাহাজটির ধ্বংসাবশেষ এবং আরোহীদের দেহাবশেষ ভুট্টাখেতে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে পড়ে। ওই সময় রুশপন্থী বিচ্ছিন্নতাবাদী ও ইউক্রেনীয় বাহিনীর মধ্যে ওই এলাকায় লড়াই চলছিল।

রায়ে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের ১ কোটি ৬৫ লাখ ডলার ক্ষতিপূরণ দেওয়ারও আদেশ দেওয়া হয়েছে। দণ্ডিত ব্যক্তিদের কাছ থেকে আদায় করা না গেলে নেদারল্যান্ডসের সরকারকে এ অর্থ দিতে বলা হয়েছে।