তবে ড্রোনটিকে কিশোরের কাছে পৌঁছাতে তাঁকে বেশ কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে বলে জানিয়েছেন পেদরেরো। বলেন, ‘বড় বড় ঢেউয়ের কারণে ড্রোনটি চালানো কঠিন ছিল। তবে শেষ পর্যন্ত আমরা তার কাছে লাইফ জ্যাকেট পৌঁছে দিতে সক্ষম হই। পরে জেট স্কি দিয়ে উদ্ধারকারীরা তার কাছে পৌঁছায়। এর আগপর্যন্ত সে ওই লাইফ জ্যাকেট ব্যবহার করে ভেসে ছিল।’

সেদিনের ঘটনায় ব্যবহার করা ড্রোনটি ভ্যালেন্সিয়ার জেনারেল ড্রোনস কোম্পানির। ২০১৭ সালে এই প্রতিষ্ঠান উত্তর ভ্যালেন্সিয়ার সাগুন্তো শহরে সমুদ্রসৈকতের উদ্ধারকারীদের ড্রোন প্রযুক্তি দিয়ে সহায়তা শুরু করে। এই মুহূর্তে স্পেনের ২২টি সৈকতে উদ্ধারকারীদের সহায়তা করছেন জেনারেল ড্রোনসের ৩০ জন ড্রোনচালক।

এদিকে উদ্ধারের পর ওই কিশোরকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। এর আগে তাকে কিছুক্ষণ অক্সিজেন দিতে হয়েছিল। হাসপাতালে কয়েক ঘণ্টা চিকিৎসার পর সুস্থ হলে তাকে বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

রয়্যাল স্প্যানিশ লাইফ সেভিং অ্যান্ড রেসকিউ ফেডারেশনের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের প্রথম ছয় মাসে স্পেনে দুর্ঘটনাবশত পানিতে ডুবে মৃত্যু হয়েছে ১৪০ জনের। সংখ্যাটা গত বছরে একই সময়ের তুলনায় ৫৫ শতাংশ বেশি।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন