নতুন আইন বাস্তবে এলে, রাশিয়ার যেসব নাগরিক গুরুতর অপরাধের সঙ্গে জড়িত ছিলেন, সাজা খাটার পরে বর্তমানে মুক্ত আছেন, তাঁদের সেনাবাহিনীতে যুক্ত করা যাবে। তবে যৌন অপরাধ, সন্ত্রাসবাদ, তেজস্ক্রিয় বস্তু চোরাচালান অথবা সরকারবিরোধী অপরাধের সঙ্গে যাঁরা যুক্ত ছিলেন, তাঁরা এই আইনের আওতায় আসবেন না।

এদিকে আজ আরেকটি খসড়া আইন পাস করেছে ডুমা। ওই খসড়ায় সেনা নিযুক্তি, যুদ্ধ ও সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানের সময় এবং বিদেশে যেসব রুশ নাগরিক স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে সেনাবাহিনীর সঙ্গে কাজ করবেন, তাঁদের পদমর্যাদা কী হবে, তা তুলে ধরা হয়েছে।

ডুমার স্পিকার ভিয়াচেসলাভ ভলোদিনের ভাষ্যমতে, তাঁরাও রুশ সেনাদের সমান মর্যাদা পাবেন। নতুন আইন জারি হলে এর আওতায় সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়া স্বেচ্ছাসেবক ও তাঁদের পরিবারের সদস্যরা সামাজিক সুরক্ষাসহ নানা সুবিধা পাবেন বলে উল্লেখ করা হয়েছে ডুমার ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে।

ডুমায় পাস হওয়ার পর এবার দুই আইনের খসড়া যাবে পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ ফেডারেশন কাউন্সিলে। উচ্চকক্ষে খসড়াগুলো অনুমোদনের পেলে সেগুলোতে স্বাক্ষর করবেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তারপর তা আইনে পরিণত হবে।