আমেরিকার প্রতিনিধি পরিষদের সদস্য এলিসা স্লোটকিন। তিনি একজন ডেমোক্র্যাট। সম্প্রতি ইউক্রেন ঘুরে এসেছেন। তিনি সিএনএনকে বলেন, ‘আমাদের ইউক্রেনে জানানো হয়েছিল, ৭৫ হাজারের বেশি রাশিয়ান নিহত বা আহত হয়েছেন। সংখ্যা হিসাবে এটি বড়। স্থলবাহিনীর ৮০ শতাংশেরও বেশি এখন হয় আটকে পড়েছেন এবং তাঁরা ক্লান্ত। তবে তাঁরা এখনো রাশিয়ান সামরিক বাহিনী সদস্য।’

এর আগে গত সপ্তাহে সিআইএর পরিচালক দাবি করেছিলেন, রাশিয়া ৬০ হাজার সেনা হারিয়েছে। গত মঙ্গলবার ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি দাবি করেন, এখন পর্যন্ত ৪০ হাজার সেনা হারিয়েছে রাশিয়া।

সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে মৃত সেনার সংখ্যা যদি সত্যি হয়, তবে ইউক্রেন যুদ্ধের পরিস্থিতি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি তৈরি করতে যাচ্ছে। এর আগে ভিয়েতনাম যুদ্ধে ৩ লাখ ৫০ হাজার মৃত্যু হয়েছে। আশির দশকে আফগানিস্তান যুদ্ধে সোভিয়েত ইউনিয়নের ৭০ হাজার সেনার মৃত্যু হয়েছিল। যুদ্ধের ৫ মাস পেরিয়েছে। রাশিয়া এখনো ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের নিয়ন্ত্রণ বা দখল নিতে পারেনি। যুদ্ধ শুরুর সময় পূর্বাঞ্চল দিয়ে আক্রমণ করার ওপর বেশি জোর দিয়েছিল রাশিয়া। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ কবে শেষ হয় এবং আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে এর কী কী প্রভাব পড়ে, এটাই এখন দেখার বিষয়।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন