দিমিত্রি মেদভেদেভ রাশিয়ার নিরাপত্তা কাউন্সিলের ডেপুটি চেয়ারম্যানের দায়িত্বে আছেন। এই কাউন্সিলের চেয়ারম্যান দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। গতকালই জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে পুতিন বলেছিলেন, রাশিয়ার ‘ভৌগোলিক অখণ্ডতা’ রক্ষায় দরকার পড়লে হাতে থাকা সব ধরনের অস্ত্র ব্যবহার করা হবে।

পশ্চিমা দেশগুলো ও ইউক্রেন নিয়ে রাশিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট মেদভেদেভ প্রায়ই উসকানিমূলক মন্তব্য করে থাকেন। ইউক্রেনে দখলে থাকা অঞ্চলগুলোর সুরক্ষায় রুশ বাহিনীকে আরও শক্তিশালী করা হবে বলে টেলিগ্রামে উল্লেখ করেন তিনি। মেদভেদেভ বলেন, এ ধরনের সুরক্ষার জন্য ‘কৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্রসহ’ রাশিয়ার সব ধরনের অস্ত্র কাজে লাগানো হবে।

মেদভেদেভ আরও বলেন, ইউক্রেনে রাশিয়ার নিয়োগ করা কর্তৃপক্ষের ও রুশপন্থী বিচ্ছিন্নতাবাদীদের নিয়ন্ত্রিত অনেক অঞ্চলে গণভোটের আয়োজন করা হচ্ছে। এই অবস্থান থেকে পেছনে ফেরা হবে না। এই ভোটের মাধ্যমে ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলের দনবাসসহ অন্য অঞ্চলগুলো রাশিয়ার সঙ্গে যুক্ত করা হবে।

ইউক্রেনের দোনেৎস্ক, লুহানস্ক, খেরসন, জাপোরিঝঝিয়া ও মিকোলাইভ প্রদেশে রাশিয়ানিয়ন্ত্রিত অঞ্চলে আগামী শুক্রবার গণভোট শুরু হতে যাচ্ছে। ভোট নজরদারির জন্য থাকছে না বাইরের কোনো কর্তৃপক্ষ। এই গণভোটের ঘটনাকে ‘লজ্জার’ আখ্যায়িত করেছে ইউক্রেন ও তার পশ্চিমা মিত্ররা।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন