রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুর পর রাজপরিবারের প্রথা অনুযায়ী তাঁর বড় ছেলে তৃতীয় চার্লস রাজা হয়েছেন। আর চার্লসের বড় ছেলে উইলিয়াম প্রিন্স অব ওয়েলস হয়েছেন। উইলিয়ামের স্ত্রী কেট মিডলটন হয়েছেন প্রিন্সেস অব ওয়েলস। তাঁদের তিন সন্তান—জর্জ, শার্লট ও লুইস।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাজ্যের স্থানীয় সময় আজ বেলা ১১টায় গির্জায় রানির অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে। তাঁর আগে ওয়েস্টমিনস্টার হল থেকে এক শোকযাত্রার মধ্য দিয়ে মরদেহবাহী কফিন গির্জায় নিয়ে যাওয়া হবে। কফিনের পেছনে রাজপরিবারের সদস্যদের শোকযাত্রায় নেতৃত্ব দেবেন রাজা তৃতীয় চার্লস ও তাঁর স্ত্রী কুইন কনসর্ট ক্যামিলা। তাঁদের পেছনে হাঁটবেন উইলিয়াম ও মিডলটন। মা-বাবার ঠিক পেছনেই থাকবে ৯ বছর বয়সী প্রিন্স জর্জ ও ৭ বছর বয়সী শার্লট। তবে তাদের ছোট ভাই ৪ বছর বয়সী লুইস শোকযাত্রায় থাকবে না।

শোকযাত্রায় জর্জ ও শার্লটের পেছনে থাকবেন তাদের চাচা ডিউক অব সাসেক্স হ্যারি এবং চাচি ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মার্কেল।

গির্জায় রানির অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠান শুরুর আগে ঘণ্টা বাজানো হবে। রানির বয়স হয়েছিল ৯৬ বছর। সে কারণে প্রতি মিনিটে একবার করে ৯৬ বার ঘণ্টা বাজানো হবে।

অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানের শেষের দিকে অন্তিম সুর ‘দ্য লাস্ট পোস্ট’ বাজানো হবে। এরপর দুই মিনিটের নীরবতা পালন করবে দেশবাসী।

অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া শেষে বিকেল চারটার দিকে উইন্ডসরে সেন্ট জর্জেস চ্যাপেলে ধর্মীয় আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করা হবে।

সন্ধ্যায় পারিবারিকভাবে সেন্ট জর্জেস চ্যাপেলে কিং জর্জ সিক্স চ্যাপেল সমাধিতে রানিকে সমাহিত করা হবে।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন