গাড়ি নিয়ে দুশ্চিন্তায় দিন পার করছেন লন্ডনের মানুষ। প্রতিদিনই সেখানে গাড়ি চুরির ঘটনা ঘটছে। কেউ কেউ বাড়তি খরচ করে গাড়িতে অতিরিক্ত নিরাপত্তাব্যবস্থা কার ট্র্যাকার কিংবা লক লাগাচ্ছেন। কিন্তু আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে মুহূর্তের মধ্যে দরজা খুলে গাড়ি নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিচ্ছে চোর চক্র।

হাজার হাজার সিসি ক্যামেরা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তৎপরতার পরও কিছুতেই এসব অপরাধের রাশ টানা যাচ্ছে না। সম্প্রতি লন্ডন থেকে বিলাসবহুল একটি গাড়ি চুরি হয়। যুক্তরাজ্য পুলিশের তথ্যের ভিত্তিতে পাকিস্তানের পুলিশ করাচি থেকে সেটি উদ্ধার করেছে।

পুলিশ বলছে, চোর চক্র কি-প্রোগ্রামিং ডিভাইস ব্যবহার করে দামি ব্র্যান্ডের গাড়ির জন্য নকল চাবি তৈরি করে। এতে করে গাড়িতে সহজে প্রবেশ ও সহজভাবে গাড়ি চালিয়ে নেওয়া যায়। দেশটির অফিস ফর ন্যাশনাল স্ট্যাটিস্টিকসের তথ্য অনুযায়ী, চুরি হওয়া গাড়িগুলোর ৭২ শতাংশের মালিক তাঁদের গাড়ি ফেরত পাননি।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে লক্ষাধিক সদস্যের ‘স্টোলেন কার ইউকে’ নামে একটি গ্রুপ আছে। সেখানে প্রতিদিন ৮ থেকে ১০ গাড়ি চুরি হওয়ার পোস্ট করা হচ্ছে। ৮ সেপ্টেম্বর ওই গ্রুপে উত্তর লন্ডনের অরপিংটন এলাকার বাসিন্দা ব্যাংকার পুস্পাতান নানজাপ্পান তাঁর রেঞ্জ রোভার গাড়ি চুরির তথ্য জানান।

গাড়ি নিয়ে দুশ্চিন্তায় দিন পার করছেন লন্ডনের মানুষ। প্রতিদিনই সেখানে গাড়ি চুরির ঘটনা ঘটছে। কেউ কেউ বাড়তি খরচ করে গাড়িতে অতিরিক্ত নিরাপত্তাব্যবস্থা কার ট্র্যাকার কিংবা লক লাগাচ্ছেন। কিন্তু আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে মুহূর্তের মধ্যে দরজা খুলে গাড়ি নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিচ্ছে চোর চক্র।

গাড়ি চুরির ঘটনায় লন্ডন পুলিশ কিছু চোর শনাক্ত ও গাড়ি উদ্ধার করতে পারলেও বেশির ভাগ অপরাধী অধরা থেকে যাচ্ছেন। পূর্ব লন্ডনের বাসিন্দা বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মাসুদ আহমেদের হুন্দাই ব্র্যান্ডের গাড়ি গত মাসে তাঁর বাসার সামনে থেকে চুরি হয়। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমি সকালে ঘুম থেকে উঠে দেখি, বাসার সামনে গাড়ি নেই। সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ ও বিমা কোম্পানিকে জানালেও এখনো গাড়ি পাইনি। যদিও ইনস্যুরেন্স আমার গাড়ির যথাযথ মূল্য পরিশোধ করেছে।’

যুক্তরাজ্যের সরকারি ওয়েবসাইটে গাড়ি চুরি হয়ে গেলে সঙ্গে সঙ্গে জরুরি সেবা ১০১ নম্বরে ডায়াল করে চুরি হওয়া গাড়ির নিবন্ধন নম্বর, মডেল ও রং উল্লেখ করে পুলিশের কাছে অভিযোগ দেওয়া এবং পুলিশ প্রতিবেদনের রেফারেন্স নম্বর দিয়ে যে কোম্পানিতে ইনস্যুরেন্স করা, তাদের জানানোর পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।